প্রকল্প

পশ্চিমবঙ্গে টানা 4 দিন রেশন দোকান বন্ধ, কোন কোন দিন রেশন সামগ্রী পাবেন না, জেনে নিন।

Adv

রেশন ডিলাররা যাচ্ছেন দিল্লি, আর সেই কারণেই ৪ দিন বন্ধ থাকবে রাজ্যের সব রেশন দোকান (Ration Shop). এই কদিন রাজ্যের সমস্ত রেশন দোকানে তালা ঝোলার সম্ভাবনা রয়েছে। এবার প্রশ্ন হচ্ছে, কেন দিল্লী যাচ্ছেন Ration ডিলাররা? কত দিন অর্থাৎ কোন কোন দিন বন্ধ থাকলে Ration সামগ্রী দেওয়া?

চারদিন বন্ধ থাকবে রেশন দোকানঃ

কেন্দ্রীয় সরকারের নীতির বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানানোর জন্য বুধবার ২২ মার্চ দিল্লিতে সংসদ ভবনের সামনে এক অবস্থান আন্দোলনের কর্মসূচি নিয়েছে Ration ডিলারদের সর্বভারতীয় সংগঠন। আর সেই অবস্থান আন্দোলনে অংশ নেওয়ার জন্যই বাংলার বহু ডিলার দিল্লি যাচ্ছেন। আর এর ফলে ২০ থেকে ২৩ মার্চ পর্যন্ত পশ্চিমবঙ্গের সমস্ত Ration দোকান বন্ধ (Ration Shop Closed) থাকবে।

Ad

ইতিমধ্যেই খাদ্য দপ্তরের সচিব পারভেজ আহমেদ সিদ্দিকীকে ডিলারদের সংগঠনের তরফে চিঠি পাঠানো হয়েছে। স্বাভাবিকভাবেই একটানা Ration দোকান বন্ধ থাকলে সমস্যার সম্মুখীন হবেন রাজ্যবাসী। Ration Card এর মাধ্যমে নির্ধারিত সময়ে নির্দিষ্ট মূল্যে বা বিনামূল্যে খাদ্যশস্য (Free Ration) পেয়ে থাকেন রেশন কার্ড (Ration Card) হোল্ডাররা। আর তার ফলেই উপকৃত হন তারা। সম্প্রতি কেন্দ্রীয় সরকার Ration ব্যবস্থায় (Rationing System) একাধিক পরিবর্তনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

জাতীয় খাদ্য সুরক্ষা আইনের (NFSA) আওতায় দেশজুড়ে কেন্দ্রীয় সরকার রেশনের মাধ্যমে খাদ্যশস্য সরবরাহ করে থাকে। পাশাপাশি, বিভিন্ন রাজ্য সরকার একইভাবে রাজ্যবাসীকেও এর মাধ্যমে বেশ কিছুটা সুরাহা দেওয়ার চেষ্টা করে। এরমধ্যেই পশ্চিমবঙ্গে দুয়ারে রেশন পরিষেবা চালু করেছে পশ্চিমবঙ্গ সরকার। যার মাধ্যমে স্থানীয় মানুষজন যথেষ্ট উপকৃত হচ্ছেন। দীর্ঘ দূরত্বের Ration দোকানে গিয়ে অনেকক্ষণ আগে থেকে লাইনে দাঁড়িয়ে থাকার সমস্যা কিছুটা হলেও কমেছে।

জিও রিচার্জ প্ল্যান, বাড়তির বাজারে সস্তার ডেটা প্যাক, সারামাস আনলিমিটেড।

সেই জায়গায় পাড়ার মধ্যে কোনো একটি নির্দিষ্ট স্থানে ডিলাররা নিয়ে এসে Ration বিলি করলে সেই সমস্যা থেকে কিছুটা হলেও রেহাই পাচ্ছেন এলাকার বাসিন্দারা। প্রথমে এই দুয়ারে রেশনের (Duare Ration) বিরোধিতা করে রাজ্যের বেশ কিছু ডিলার। তারা সরকারের এই সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করে আদালতে পর্যন্ত যায়। তবে সম্প্রতি সুপ্রিম কোর্টের পক্ষ থেকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, Duare Ration কর্মসূচি পশ্চিমবঙ্গ সরকার চালাতে পারবে। সেখান ডিলারদের সরকারের নির্দেশ মানতে হবে।

এবার এই ব্যবস্থায় একটানা দীর্ঘদিন দোকান বন্ধ থাকলে তার প্রভাব পড়াটাই স্বাভাবিক। তবে তার সঙ্গে এটাও গুরুত্বপূর্ণ, কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে একাধিক নীতির কারণে অন্যান্য বিভিন্ন ক্ষেত্রে প্রতিবাদ জানানো হচ্ছে। এবার কেন্দ্রীয় সরকারের রেশন সংক্রান্ত নীতির বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানানোর জন্য অল ইন্ডিয়া ফেয়ার প্রাইস শপ ডিলারস ফেডারেশনের তরফে খাদ্য দপ্তরকে চিঠি লিখে এই আন্দোলনের প্রসঙ্গে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী বাংলা আবাস যোজনার টাকা পেতে এইভাবে আবেদন করুন।

সাধারণত সোমবার দোকানগুলিতে সাপ্তাহিক ছুটি থাকে। বুধবার দিল্লিতে আন্দোলন রয়েছে। মঙ্গলবার ডিলাররা দিল্লির উদ্দেশ্যে রওনা হবেন। বুধবার আন্দোলনে যোগ দিয়ে বৃহস্পতিবার রাজ্যে ফিরতে পারেন তারা। এই ৪ দিন সেই কারণেই Ration দোকান বন্ধ রাখার কথা ঘোষণা করা হয়েছে। অল ইন্ডিয়া ফেয়ার প্রাইস শপ ডিলারস ফেডারেশনের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, রাজ্যের প্রায় ১৭ হাজার ডিলার প্রতিবাদ জানানোর জন্য দিল্লি যাবেন। তবে যারা দিল্লি যেতে পারবেন না, তারাও এই ৪ দিন Ration দোকান বন্ধ রাখবেন।

সামান্য টাকায় শুরু করুন এই ব্যবসা, কয়েক মাসেই পাবেন অবিশ্বাস্য প্রফিট, বিশদে জানুন।

সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক দিল্লিতে পৌঁছে গিয়েছেন। তিনি বলেন, কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে যে সমস্ত দাবি নিয়ে আন্দোলন করছি, সেটা গ্রাহকদের জন্যই। যাতে সুষ্ঠুভাবে গ্রাহকরা পরিষেবা পান এবং ডিলাররা তাদের সব রকম পরিষেবা ঠিকভাবে দিতে পারেন, সেজন্যই এই আন্দোলন। আমাদের অবস্থানের কথা খাদ্য দপ্তরকেও লিখিতভাবে জানিয়েছি। আমরা গ্রাহকদের কাছে সহযোগিতার আশা করছি। এবার সপ্তাহের শুরুতেই ৪ দিন পরপর রেশন দোকান বন্ধ থাকার ফলে মানুষজন যথেষ্ট সমস্যার সম্মুখীন হতে পারেন।
Written by Rajib Ghosh.

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

string(103) ""