অর্থনীতি

LIC এর জীবন অক্ষয় পলিসিতে মাত্র একবার বিনিয়োগ করলেই প্রতি মাসে পাওয়া যাবে ৩৬ হাজার টাকা

Adv

যুগের সাথে তাল মিলিয়ে মানুষের জীবনে লাইফ ইন্স্যুরেন্সের গুরুত্ব ক্রমান্বয়ে বাড়ছে। বিগত দুই বছরে করোনার কারণে ভারতের নাগরিকরা যে অনিশ্চিত পরিস্থিতির সম্মুখীন হয়েছেন তাতে লাইফ ইন্স্যুরেন্সের গুরুত্ব আরও বেড়ে গিয়েছে। বর্তমানে অধিকাংশ মানুষই তাদের এবং তাদের পরিবারের ভবিষ্যৎ সুরক্ষিত করার জন্য কোনো না কোনো ক্ষেত্রে বিনিয়োগ করেই থাকেন। অনেকেই আবার তাদের চাকরি পরবর্তী জীবনের কথা ভেবে বিভিন্ন ধরনের পেনশন পলিসিতে বিনিয়োগ করে থাকেন। আর কেন্দ্র সরকারের নতুন শ্রম নীতির ফলে এরূপ পেনশন পলিসিগুলির চাহিদা ক্রমান্বয়ে বাড়ছে। আজ আমরা সমস্ত বিনিয়োগকারীদের জন্য ভারতে অন্যতম জনপ্রিয় বীমা সংস্থা LIC এর তরফে কার্যকারী এমন একটি বীমা সম্পর্কিত বিস্তারিত তথ্য নিয়ে হাজির হয়েছি তাতে আপনার প্রতি মাসে ৩৬ হাজার টাকা পর্যন্ত পেয়ে যেতে পারবেন।

LIC এর তরফে কার্যকরী এই নতুন পলিসিটি জীবন অক্ষয় পলিসি নামে সমগ্র ভারতে পরিচিত। যেকোনো ভারতীয় নাগরিকই এই পলিসির অধীনে বিনিয়োগ করতে পারবেন, তবে বিনিয়োগের ক্ষেত্রে বিনিয়োগকারীর বয়স ৩৫ বছর থেকে শুরু করে ৮৫ বছরের মধ্যে হতে হবে। এমনকী একই পরিবারের দুজন ব্যক্তি যৌথভাবে এই পলিসিতে বিনিয়োগ করতে পারবেন। আর এই পলিসির সব থেকে আকর্ষণীয় বিষয় হলো এই পলিসির অধীনে একজন গ্রাহককে মাত্র একবারই বিনিয়োগ করতে হবে। এক্ষেত্রে আপনি মাত্র ১ লক্ষ টাকা থেকে বিনিয়োগ শুরু করতে পারেন এবং এই পলিসির অধীনে বিনিয়োগের কোনো উর্ধ্বসীমা নেই। অর্থাৎ আপনি আপনার সামর্থ্য অনুসারে ১ লক্ষ টাকা থেকে শুরু করে যেকোন অংকের আমানত বিনিয়োগ করতে পারবেন।

Ad

ট্যাবের ১০ হাজার টাকা ফেরত চেয়ে নির্দেশ জারি করলো নবান্ন। কাকে কাকে ফেরত দিতে হবে টাকা?

LIC এর জীবন অক্ষয় পলিসির অধীনে যেকোনো বিনিয়োগকারী করের ক্ষেত্রে ১ শতাংশ ছাড় পেয়ে যাবেন। এমনকী এই পলিসির অধীনে বিনিয়োগের পর ৩ মাস সময় অতিক্রান্ত হলে আপনি ঋণ নেওয়ার সুযোগও পেয়ে যাবেন। অন্যদিকে জীবন অক্ষয় পলিসির বিনিয়োগকারীদের জন্য বিনিয়োগের পর মোটা অংকের রিটার্ন নেওয়ার সুবিধাও রয়েছে। এই পলিসির অধীনে পেনশন নেওয়ার ক্ষেত্রেও যথেষ্ট সুবিধা পাবেন বিনিয়োগকারীরা। আপনি আপনার সুবিধামতো ১ মাস, ৩ মাস এবং ৬ মাস অন্তর অন্তর পেনশন নেওয়ার সুবিধা পেতে পারেন। সুতরাং, অন্যান্য স্কিমে যেমনভাবে মাসিক, ত্রৈমাসিক অথবা অর্ধবার্ষিক ভিত্তিতে বিনিয়োগ করা যায় এক্ষেত্রে তেমনভাবেই মাসিক, অর্ধবার্ষিক কিংবা ত্রৈমাসিক ভিত্তিতে আপনি পেনশন নিতে পারবেন।

এরকম আরো গুরুত্বপূর্ণ তথ্য সবার আগে পেতে যুক্ত হন আমাদের টেলিগ্রাম গ্রুপে – Link

তবে বিনিয়োগের পূর্বে আপনাকে অবশ্যই জানতে হবে আপনি কতো টাকা বিনিয়োগ করলে কতো টাকা পেনশন পাবেন। প্রথমেই বলে রাখা প্রয়োজন আপনি যদি জীবন অক্ষয় পলিসির অধীনে ১ লক্ষ টাকা বিনিয়োগ করেন তবে আপনি প্রতিমাসে ১২ হাজার টাকা করে পেনশন পাবেন। অন্যদিকে, আপনি যদি এককালীন ৪০ লক্ষ ৭২ হাজার টাকা বিনিয়োগ করেন তবে আপনি প্রত্যেক মাসে পেনশন হিসেবে ২০ হাজার ৯৬৭ টাকা রিটার্ন পেয়ে যাবেন। জীবন অক্ষয় পলিসির অধীনে যদি আপনি এককালীন ৭০ লক্ষ টাকা বিনিয়োগ করেন তবে আপনি প্রত্যেক মাসে পেনশন হিসেবে ৩৬ হাজার ৪২৯ টাকা পেয়ে যাবেন।

জীবন অক্ষয় পলিসির আওতায় আপনি যে পরিমাণ টাকা বিনিয়োগ করে যে অর্থের আমানত রিটার্ন পাবেন তা আপনি যেকোনো ব্যাংকের সেভিংস অ্যাকাউন্টে টাকা বিনিয়োগ করে অথবা যেকোনো ফিক্সড ডিপোজিটে আপনার একই আমানতের টাকা বিনিয়োগ করে পাবেন না। সুতরাং, আপনি যদি রিটায়ার্ড লাইফ কোনোরকম সমস্যা ছাড়াই শান্তিতে কাটাতে চান তবে এই স্কিমটি আপনার জন্য একেবারে পারফেক্ট। তবে এক্ষেত্রে যারা কম বয়সে বিনিয়োগ করবেন তাদের সুবিধা অনেক বেশি। কারণ অন্য যেকোনো পলিসির মতোই এই পলিসির অধীনেই আপনি যতো দীর্ঘ সময়ের জন্য বিনিয়োগ করবেন ততো বেশি লাভ পাবেন।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

string(98) ""