প্রকল্প

বাজেটে মিড ডে মিলের বরাদ্দ কমালো কেন্দ্র, তাহলে কি কমে যাবে খাবারের মান।

Adv

মিড ডে মিল হল সর্বশিক্ষা অভিযানের অন্তর্গত একটি প্রকল্প যা পিএম পোষণ স্কীম নামে ও পরিচিত। এবারের বাজেট অর্থাৎ Budget 2023-24 এ শিক্ষা ক্ষেত্রে খরচের পরিমাণ 8.3 শতাংশ বাড়ানোর প্রস্তাব রাখা হলেও মিড ডে মিল (পিএম পোষণ স্কীম) প্রকল্পে তার উল্টো চিত্র। এই স্কিমে বরাদ্দ অর্থ কমিয়ে দেওয়া হয়েছে এইবছরের বাজেটে।

মিড ডে মিলের বরাদ্দ কমে কত হল, জানতে হলে পড়ুন বিস্তারিত।

2022-23 অর্থবর্ষে প্রাক-প্রাথমিক থেকে অষ্টম শ্রেণী পর্যন্ত পড়ুয়াদের মধ্যাহ্নভজে অর্থাৎ মিড ডে মিলের ক্ষেত্রে বরাদ্দ ছিল 10233 কোটি টাকা। এইখাতে গত অক্টোবর মাসে প্রাথমিক ও উচ্চ প্রাথমিকে পড়ুয়া পিছু যথাক্রমে 48 ও 70 পয়সা বরাদ্দ বাড়ানো হয়। যার ফলস্বরুপ সংশোধিত বাজেটে মিড ডে মিলের বরাদ্দ বেড়ে হয় 12800 কোটি টাকা।

Ad

রেশন থেকে আয়কর, চাকরি থেকে ছুটি, জেনেনিন কি কি পেলেন এবারের বাজেটে।

কিন্তু আগামী অর্থবছরে অর্থাৎ 2023-24 অর্থবছরে মিড ডে মিলের সেই বরাদ্দ কমিয়ে 11600 কোটি টাকা করে দেওয়া হয়েছে। যা আগের বারের থেকে প্রায় 1200 কোটি টাকা কম। শিক্ষা ক্ষেত্রে বাজেট বাড়াতে একদিকে যেমন স্বস্তি অন্যদিকে মিড ডে মিলের বাজেট কমায় দুশ্চিন্তা কিন্তু থেকেই যাচ্ছে। এমনিতে আগে যা শিক্ষা ক্ষেত্রে বাজেট ছিল তাতে শিক্ষা ছাড়া বারতি কোন কাজের বা উন্নতির টাকা থাকত না।

শিক্ষা মহলের একাংশ মনে করেন, করোনাকালে দীর্ঘদিন স্কুল বন্ধ ছিল। ফলে স্কুল ছুট হয়েছে অনেক শিক্ষার্থী। তাদের স্কুলে ফেরানোর জন্য এই স্কিম সাহায্য করত। কিন্তু তাতেই যদি সেইখানেই ভাঁটা পড়ে যায় তাহলে বেশ সমস্যা হবে। আবার অন্য দিকে একাংশের শিক্ষক-শিক্ষিকারা মনে করছেন মহামারির সময় প্রচুর বারতি খরচ হয়েছে স্কুল গুলিতে।

সেই ক্ষতিপূরণের জন্য প্রাক-প্রাথমিক থেকে উচ্চমাধ্যামিক পর্যন্ত স্কুলগুলির সার্বিক উন্নয়নে সমগ্র শিক্ষা মিশন প্রকল্পে আরও বেশি গুরুত্ব দেওয়ার জন্য শিক্ষা ক্ষেত্রে বাজেট বাড়ানো হয়েছে, যার দরুন মিড ডে মিলের বাজেট কমেছে। এর ফল কিহবে তা নিয়ে বিরোধী মহলে জল্পনা তুঙ্গে। আবার অপর দিকে শিক্ষা ক্ষেত্রে টাকা বাড়ায় খুশি অনেকেই।

এবারের বাজেটে কি কি পেলেন, কি হারালেন, ৪টি সুখবর, ২টি হতাশা।

এছাড়াও এদিনের বাজেটে দেশের আদিবাসী এলাকায় প্রায় চার লক্ষ জনজাতি পড়ুয়ার উন্নতির কথা মাথায় রেখে 740 টি একলব্য মডেল আবাসিক স্কুলে আগামী তিন বছরে 38800 শিক্ষক ও শিক্ষা কর্মী নিয়োগের কথা বলা হয়েছে। আশাকরি আমাদের এই প্রতিবেদনটি আপনাদের ভালো লাগবে, এরকম আরও নানা ধরনের খবর পেতে চোখ রাখুন আমাদের এই ওয়েবসাইটে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

string(83) ""