প্রকল্প

পয়লা জানুয়ারি থেকে পালটে যাচ্ছে রেশন তোলার নিয়ম। নতুন নিয়ম জেনে নিন

Adv

পশ্চিমবঙ্গ তথা ভারত জুড়ে রেশন নিয়ে দুর্নীতি নতুন কোনো বিষয় নয়। তবে এবারে এই দুর্নীতি রুখতে পশ্চিমবঙ্গের রাজ্য সরকারের তরফে এমন এক পদক্ষেপ নেওয়া হলো, যার ফলে আগামী দিনে এই সমস্ত দুর্নীতির অবসান হতে চলেছে বলেই মনে করা হচ্ছে সমগ্র রাজ্যের রেশন গ্রাহক, ডিলার তথা খাদ্য দপ্তরের তরফে। পশ্চিমবঙ্গের খাদ্য দপ্তরের তরফে সমস্ত গ্রাহক এবং রেশন ডিলারদের উদ্দেশ্যে জানানো হয়েছে যে, আগামী দিনে চোখের মণির ছবি মিলিয়ে তবেই গ্রাহকদের রেশন দেওয়া হবে। প্রাথমিকভাবে মনে করা হচ্ছে, দুর্নীতির অবসান ঘটাতে রেশন দেওয়ার নিয়মে এই নতুন পদ্ধতি কার্যকর করা হবে রাজ্য সরকারের তরফে। রেশনে দুর্নীতি বন্ধ করার ক্ষেত্রে রাজ্য সরকারের তরফে গৃহীত পদক্ষেপ এই নতুন নয়।

ইতিপূর্বে বারংবার রেশন বিতরণ নিয়ে অভিযোগ করা হয়েছিল যে, এক গ্রাহকের রেশন অন্য গ্রাহক এসে সংগ্রহ করে নিয়ে যায়, অধিকাংশ ব্যক্তিই তাদের রেশন সংগ্রহ করতে যান না। এমনকী ভুতুড়ে রেশন গ্রাহকদের নিয়েও বারংবার অভিযোগ জমা পড়েছিলো রাজ্য সরকারের দপ্তরে। এর পাশাপাশি আরও অভিযোগ উঠেছিলো যে, অধিকাংশ রাজ্যবাসীই মৃত গ্রাহকের রেশন কার্ড জমা না দিয়ে তাদের রেশন কার্ডের বরাদ্দ চাল, গম ও নিজেরা সংগ্রহ করছেন। আর এই সমস্ত অভিযোগের ভিত্তিতে রেশন নিয়ে দুর্নীতি বন্ধ করার জন্য রাজ্য সরকারের তরফে রেশন কার্ডের সাথে আধার কার্ড লিংক করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু তাতেও কোনোমতেই রেশন সংক্রান্ত দুর্নীতি বন্ধ করা যায়নি।

Ad

খাদ্য দপ্তরের তরফে প্রকাশিত এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে যে, আধার কার্ডের সাথে রেশন কার্ডের লিংক করা হলেও সব সময়ই যে বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে গ্রাহকদের আঙ্গুলের ছাপ দিয়ে রেশন সংগ্রহ করতে হবে এমনটা নয়। অনেকক্ষেত্রেই বিশেষত বয়স্ক ব্যক্তিদের ক্ষেত্রে আঙুলের ছাপ মেলে না। এমনকী অনেক প্রাপ্তবয়স্ক গ্রাহকেরও আঙ্গুলের ছাপ মিলতে চায় না। সুতরাং, তাদের রেশন দেওয়ার ক্ষেত্রে বিকল্প দুটি পদ্ধতি অবলম্বন করা হয় রাজ্যের রেশন ডিলারদের তরফে। আর এই বিকল্প পদ্ধতিগুলির মধ্যে রয়েছে, ওটিপি বা ওয়ান টাইম পাসওয়ার্ড এবং ম্যানুয়াল পদ্ধতি। ওটিপি-এর ক্ষেত্রে যেসমস্ত গ্রাহকদের আঙ্গুলের ছাপ মেলে না তাদের মোবাইল ফোনে ওয়ান টাইম পাসওয়ার্ড পাঠানো হয়ে থাকে এবং রেশন ডিলারকে ওই ওটিপি বললে উক্ত গ্রাহককে রেশন দিয়ে দেওয়া হয়।

আধার কার্ড নিয়ে বড় পদক্ষেপ কেন্দ্রের। আপনার আধার কার্ড থাকলে জেনে রাখুন

তবে কোনো গ্রাহকের ক্ষেত্রে যদি তিনবার ওটিপি পাঠানোর পরেও যদি কোনোভাবেই লেনদেন সম্ভব না হয় তবে সেক্ষেত্রে গ্রাহকের আধার নম্বর দেখেই গ্রাহকদের রেশন দিয়ে দেওয়া হয়ে থাকে। অধিকাংশ ক্ষেত্রেই গ্রাহকদের আধার কার্ড পর্যন্ত চেক করা হয় না, যেকোনো কাগজে আধার নম্বর লেখা থাকলেই এবং সেটি গ্রাহকের নিজস্ব আধার নম্বর হলেই উক্ত গ্রাহককে রেশন দিয়ে দেওয়া হয়। তবে আগামীতে আর তা কোনোভাবেই সম্ভব হবে না। খাদ্য দপ্তরের তরফ জানানো হয়েছে যে, বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে হাতের আঙ্গুলের ছাপ নাও মিলতে পারে তবে চোখের মণির ছবি অবশ্যই মিলবে। আগামী দিনে রেশন বিতরণের ক্ষেত্রে গ্রাহকদের চোখের মণির ছবির সাথে সরকারের ডাটাবেসে থাকা উক্ত গ্রাহকের চোখের মণির ছবি সাথে মিলিয়ে নেওয়া হবে।

এরকম আরো গুরুত্বপূর্ণ তথ্য সবার আগে পেতে যুক্ত হন আমাদের টেলিগ্রাম গ্রুপে – Link

বিভিন্ন সূত্র অনুসারে জানা গিয়েছে যে, ইতিমধ্যেই এ বিষয়ক পরিকল্পনা রূপান্তর করার জন্য মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে প্রস্তাব করা হয়েছে। মুখ্যমন্ত্রীর তরফে সবুজ সংকেত দেওয়া হলে তবেই এই পরিকল্পনা বাস্তবায়িত করার ক্ষেত্রে পরবর্তী পদক্ষেপ নেওয়া হবে খাদ্য দপ্তরের তরফে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

string(107) ""