অর্থনীতি

Fixed Deposit Scheme – FD স্কিমে বিনিয়োগ করছেন? জানেন কী এর সুবিধা এবং অসুবিধাগুলি?

Adv

বিনিয়োগের জন্য সেরার সেরা স্কিম বেছে নিতে চান সাধারণ মানুষ। কিন্তু সেই ক্ষেত্রে বেশিরভাগ মানুষের ভরসা FD বা ফিক্সড ডিপোজিট (Fixed Deposit Scheme). কারণ এই ক্ষেত্রে বিনিয়োগের উপর ভালো রিটার্ন পাওয়া যায়। আবার এটাই ঠিক কিছু অসুবিধাও রয়েছে। অনেকেই সেই বিষয়গুলি না জেনেই বিনিয়োগ করে ফেলেন। তাই বিনিয়োগের আগে সমস্ত সুবিধা এবং অসুবিধার দিকগুলি জেনেই পা বাড়ানো প্রয়োজন। আপনিও কী Fixed Deposit Scheme এ বিনিয়োগের কথা ভাবছেন? সম্প্রতি অনেক সরকারি এবং বেসরকারি ব্যাংকে নির্দিষ্ট সীমার মধ্যে বাড়ানো হয়েছে fd তে সুদের হার। বিশদে জানতে হলে অবশ্যই সম্পূর্ণ প্রতিবেদনটি পড়তে ভুলবেন না।

PNB গ্রাহকদের জন্য সুখবর, বাড়লো Fixed Deposit Scheme এ সুদের হার, বিশদে জেনে নিন।

Fixed Deposit Scheme এ বিনিয়োগ মানেই নিশ্চিত রিটার্ন। তাই অনেকেই স্থায়ী আমানতে বিনিয়োগের মাধ্যমে সঞ্চয়ের কথা ভাবেন। কী কী সুবিধা পাওয়া যাবে?
১) নিশ্চিত রিটার্ন- স্থায়ী আমানতে বিনিয়োগ মানেই মিলবে নিশ্চিত রিটার্ন। তাইজন্য এই স্কিমে বিনিয়োগের কথা পরিকল্পনা করেন বহু মানুষ। তাছাড়া নির্দিষ্ট বিনিয়োগ ও মেয়াদের ভিত্তিতে পাওয়া যায় নির্ধারিত সুদও। তাই কোনো সমস্যা হয় না।

Ad

২) বিভিন্ন মেয়াদের সুবিধা- FD অর্থাৎ স্থায়ী আমানতে বিনিয়োগ মানেই মেলে নির্দিষ্ট মেয়াদের অপশনও। অর্থাৎ বিনিয়োগকারীরা নির্দিষ্ট পরিমান টাকা সঞ্চয়ের ক্ষেত্রে পেয়ে থাকেন বিভিন্ন মেয়াদের অপশন। অবশ্য এটা নির্ধারিত হয় ব্যাংক কর্তৃপক্ষের তরফে। যেমন কথার কথা, 1 কোটি টাকার নিচে এক সপ্তাহ থেকে 60 দিনের মেয়াদে পাওয়া যাবে 3.06ফ সুদের হার। এরপর বিনিয়োগকারীরা নিজেদের আর্থিক লক্ষ্য অনুযায়ী মেয়াদ নির্ধারণ করতে পারেন।

৩) দ্রুত রিটার্ন- স্বল্পমেয়াদী আমানতেও পাওয়া যেতে পারে দ্রুত রিটার্ন। অর্থাৎ বিনিয়োগকারী কিছুদিনের জন্য এই স্কিমে বিনিয়োগের সুবিধা পাবেন। নির্দিষ্ট সময় শেষে সেই টাকা হাতে চলে আসবে।
৪) নিরাপত্তা- স্থায়ী আমানতে বিনিয়োগে টাকা হারানোর ভয় থাকে না। নির্দিষ্ট মেয়াদ শেষে পাওয়া যাবে পূর্বনির্ধারিত সুদের হার। তাই টাকা কমার কোনও সম্ভাবনা নেই। আর্থিক বিষয়ে জ্ঞান কম, এমন ব্যক্তিরাও এই ক্ষেত্রে টাকা সঞ্চয় করতে পারেন।
তাছাড়া বিনিয়োগের জন্য একাউন্ট ওপেনিং করতেও কোনো সমস্যা হয় না। নির্দিষ্ট নিয়ম মেনে সঠিক কাগজপত্রের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট ব্যাংকের শাখায় গিয়ে দেখে শুনে ডকুমেন্ট জমা করতে হবে।

মাত্র দেড় মাস বাকি! চলতি বছরের আয়কর রিটার্ন দাখিল করতে হবে, না হলে মোটা টাকা জরিমানা।

অসুবিধাগুলি হল-
১) নিশ্চিত রিটার্ন-
Fixed Deposit Scheme এ নিশ্চিত রিটার্ন এর সুবিধা মেলে। এটা একদিকে বিনিয়োগকারীদের জন্য অসুবিধাও। কারণ নির্দিষ্ট হারেই টাকা বৃদ্ধি পায়। তাই অন্যান্য স্কিমে যেমন মুদ্রাস্ফীতির সঙ্গে তাল মিলিয়ে বাড়ে সুদের হারও। এক্ষেত্রে তা হয় না।

২) লিকুইডিটির পরিমান কম- এই বিনিয়োগের ক্ষেত্রে একটি লক-ইন পিরিয়ড থাকে। সেই জন্য মেয়াদপূর্তির আগে টাকা তোলা যায় না। যদি এই নিয়ম না মানা হয়, তাহলে জরিমানা হতে পারে বা অন্য কোনো সমস্যার সম্মুখীন হতে পারেন বিনিয়োগকারী।

৩) কর- এই স্থায়ী আমানত থেকে সুদ পাওয়া যাবে, তা আয়কর স্ল্যাব অনুযায়ী করযোগ্য। যার ফলে রিটার্নর পরিমান কমার আশংকা থাকে। বর্তমানে PNB বা পাঞ্জাব ন্যাশনাল ব্যাংকে ২ কোটি টাকার কম আমানত-সহ Fixed Deposit Scheme এর ওপরে বেড়েছে সুদের হার। এই নয়া সুদের হার গত 18 মে থেকে কার্যকরী হয়েছে।
444 দিনের এফডিতে সাধারণ নাগরিকেরা পাবেন বাড়তি 45 বেসিস পয়েন্ট।

এটিএম থেকে কতবার ফ্রিতে টাকা তুলতে পারবেন, বেশি তুললে কত চার্জ লাগবে?

ফলে সুদের হার বেড়ে দাঁড়িয়েছে 6.8% থেকে 7.25%. আর প্রবীণ নাগরিকেরা 7.30% থেকে 7.75%.
এছাড়া বিনিয়োগকারী যদি এনআরআই হিসেবে 444 দিনের FD তে বিনিয়োগ করেন, তারাও 7.25% সুদ।
বিনিয়োগ সংক্রান্ত খবরের নতুন আপডেট সবার আগে পেতে হলে এই ওয়েবপোর্টালটি ফলো করতে ভুলবেন না।
Written by Manika Basak.

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

string(97) ""