অর্থনীতি

E Mudra Loan – 40 কোটি দেশবাসী টাকা পাবে। আধার কার্ড থাকলেই টাকা দেবে মোদী সরকার।

Adv

আপনি বিপদে পড়লে আপনাকে ঋণ (E Mudra Loan) দেবে মোদী সরকার। হ্যাঁ ঠিক শুনেছেন, দেশের সাধারন মানুষদের সুবিধার্থে নিয়ে এলো ই মুদ্রা লোন। এই জজিনর মাধ্যমে এবার দেশের 40 কটি জনগনকে টাকা দিতে চলেছে সরকার। এই রাজ্যের মানুষদের জন্যে রয়েছে সুবিধা। মানুষের জীবনে বিপদ বলে আসে না। আমরা যতই রোজগার করিনা কেনো বিভিন্ন সময় আমাদের টাকার দরকার পরে যায়।

PM E Mudra Loan Online Apply.

আর তখন কোথাও না কোথাও থেকে ধার বা ঋণ নিতে হয়। কিন্তু কারো কাজ থেকে টাকা ধার নেওয়া বা কোন সংস্থা থেকে ঋণ নেওয়া সহজ নয়। এমন পরিস্থিতিতে যদি কারোর এখুনি টাকার প্রয়োজন হয় তাহলে সমস্যায় পড়তে হয় তাদের। এবার সেই সমস্যা থেকে মুক্তি দিতে এসেছে মোদী সরকার। 5 মিনিটেই এই সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে।

এই E Mudra Loan মাধ্যমে মোদী সরকার 10 লক্ষ টাকা পর্যন্ত ঋণ দেবে গ্রাহকদের তাও কম সময়ে, সহজ শর্তে ও কম সুদে। আর এর ফলে অনেক মানুষ সুবিধা পেতে চলেছে। এই PM Mudra Yojana হল ই মুদ্রা লোন এর একটি অংশ। প্রধানমন্ত্রী 2015 সালে চালু করেন PM E Mudra Loan Yojana. এই যোজনার মাধ্যমে ক্ষুদ্র ও ছোট ব্যবসায়িকদের ব্যবসা করার জন্য লোন (Business Loan) দেওয়া হয়।

ব্যবসা করার জন্য যারা মূলধন জোগান করতে পারছেন না তাদের এই প্রকল্পের মাধ্যমে সহজ সুদে লোন দেয় কেন্দ্র সরকার। সেই কারণে এটি এই ধরনের ব্যবসায়ীদের ‘লাস্ট মাইল ফিনান্সার’ হিসেবেও পরিচিত। এর আগে একাধিকবার প্রধানমন্ত্রী মুদ্রা যোজনা আওতায় সুবিধা লাভ করেছেন দেশের প্রচুর বেকার যুবক যুবতী। সম্প্রতি আবারো 40 কোটি জনগণকে E Mudra Loan প্রকল্পের মাধ্যমে ঋণ দেওয়ার কথা ঘোষণা করা হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী মুদ্রা যোজনা প্রকল্পের (E Mudra Loan) আওতায় যেই ঋণ (Loan) প্রদান করা হবে। তা তিনটি বিভাগে ভাগ করা হয়। এক, শিশু ঋণ দ্বিতীয় কিশোর ঋণ ,আর তৃতীয় তরুন ঋণ। শিশু ঋণের আওতায় 50 হাজার টাকা পর্যন্ত লোন দেওয়া হবে। কিশোর ঋণের আওতায় 50 থেকে 5 লক্ষ টাকা পর্যন্ত দেওয়া হবে। আর তরুন ঋণের মাধ্যমে 5 থেকে 10 লক্ষ টাকা পর্যন্ত E Mudra Loan দেওয়া হবে।

উপরোক্ত তিন ক্ষেত্রে E Mudra Loan নেওয়ার জন্য বিভিন্ন হারে সুদ ফেরত দিতে হবে ঋণ গৃহীতাদের। এই সুদের হার তাদেরকে তাদের ব্যাংক কর্তৃপক্ষের তরফ থেকে জানিয়ে দেওয়া হবে ঋণ দেওয়ার সময়। মূলত SBI ব্যাংকের গ্রাহকদের 5 লক্ষ টাকা পর্যন্ত লোন অনলাইনের মাধ্যমে দেওয়া হয়। অনলাইনে আবেদন করলে 5 মিনিটের মধ্যে স্যাংশন হয়ে যায় (SBI E Mudra Loan).

অপরদিকে অফলাইনে দেশের যে কোনো রাষ্ট্রয়ত্ব ব্যাংক এই এই মুদ্রা লোনের জন্য আবেদন করা যাবে। এই মুদ্রা যোজনার সুদের হার (E Mudra Loan Interest Rate) বিভিন্ন ব্যাংকে বিভিন্ন রকম। তবে মোটের উপরে 9 থেকে 12% এর মাঝে সুদের হার ঘোরা ফেরা করে। আর যাদের SBI টে account আছে তারা সুদের ক্ষেত্রে আরো সুবিধা লাভ করবে। ভালো সিবিল স্কোর থাকলে কম সুদে ই মুদ্রা লোন পাওয়া যাবে।

E Mudra Loan Online Apply

1) 2 কপি পাসপোর্ট সাইজ ফোটো ও মুদ্রা যোজনার আবেদন পত্র।
2) KYC Documents যেমন আবেদনকারীর Passport, Voter ID Card, Driving License, Aadhaar Card, ইউটিলিটি বিল, PAN Card ইত্যাদি।
3) বিশেষ পরিচয় নথি যেমন জাতি শংসাপত্র, যদি আবেদনকারী ব্যক্তি তপশিলি জাতি বা উপজাতির অন্তর্ভুক্ত হন।
4) ব্যবসায়ের আয়ের প্রমান পত্র।

5) ব্যবসার ঠিকানা ও প্রমান।
6) ব্যবসা প্রতিষ্ঠার প্রমান।
7) 12 মাসের একটি Bank Account Statement.
8) গত 2 বছরের আয়কর রিটার্ন (Income Tax Return).
9) ব্যাংক কর্ম কর্তাদের দ্বারা অনুরোধ করা অন্য কোনো নথি।

E Shram Card (ই শ্রম কার্ড)

E Mudra Loan Online Apply

1) প্রথমে SBI এর অফিসিয়াল ওয়েবসাইট www.onlinesbi.in যেতে হবে।
2) এরপরে মুদ্রা যোজনা সম্পর্কিত সেকশোনে প্রবেশ করুন।
3) এরপরে আবেদন পত্রটি থাকবে তা সব তথ্য দিয়ে পূরণ করতে হবে।
4) কত টাকা ঋণ নেবেন তাও উল্লেখ করতে হবে।
5) তারপরে নতুন একটি পেজ খুলবে সেখানে যেসব নথি চাইছে তা স্ক্যান করে আপলোড করতে হবে। এইভাবে আবেদন করতে হবে।

চাকরি না করেও 5000 টাকা পাবেন প্রতিমাসে। মোদী সরকারের বড় ঘোষণা।

E Mudra Loan Offline Apply Process

1) যে রাষ্ট্রয়ত্ব ব্যাংকে আবেদনকারীর Account আছে সেই ব্যাংকে গিয়ে যোগযোগ করতে হবে।
2) এরপরে তারা একটি আবেদন পত্র দেবে। সেখানে সব তথ্য লিখতে হবে। কোন ধরণের ব্যবসা করতে চান এবং তার জন্যে কত লোন নেবেন তা সব উল্লেখ করতে হবে।
3) এরপরে সব প্রয়োজনীয় নথি আবেদনপত্র জমা করতে হবে ব্যাংকে তাহলে আবেদন করা শেষ হবে।
4) সবশেষে ব্যাংকের পক্ষ থেকে একটি রসিদ দেওয়া হবে। আর E Mudra Loan অনুমোদন পেলে সঙ্গে সঙ্গে সেই টাকা আবেদনকারীর একাউন্টে পাঠিয়ে দেওয়া হবে।
Written by Ananya Chakraborty.

SBI গ্রাহকদের লাস্ট ওয়ার্নিং দিলো স্টেট ব্যাংক। 29 ফেব্রুয়ারির আগে এই কাজ না করলে দায় নেবেনা ব্যাংক কতৃপক্ষ।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

string(105) ""