সোনার দাম

Gold Rate – সোনা কেনাবেচায় নতুন নিয়ম। ক্রেতা ও বিক্রেতারা অবশ্যই জেনে নিন।

Adv

অলঙ্কারের প্রতি আকর্ষণ চিরকালীন। বিশেষ করে মহিলাদের সোনার গয়নার (Gold Rate) প্রতি একটা টান রয়েছে। আর গয়না বলতেই বোঝা যায় সোনার গয়না (Gold Ornaments) তবে বর্তমানে বেশ কিছু ক্ষেত্রে রুপোর তৈরি করে গহনাও ব্যবহৃত হচ্ছে। এবার বিয়ে থেকে শুরু করে যে কোনো শুভ অনুষ্ঠানে সোনা ও রুপোর গয়নার প্রচলন রয়েছে। যতই বলা হোক না কেন, এখনো পর্যন্ত সমাজ থেকে পণ প্রথা মুছে যায়নি। অধিকাংশ ক্ষেত্রেই কোনো মেয়ের বিয়ের সময় পাত্র পক্ষের তরফে গয়নার দাবি করা হয়ে থাকে। জেতা একটি সভ্য সমাজের ক্ষেত্রে একদমই বাঞ্ছনীয় নয়।

Gold Rate Latest Update For All Sellers And Buyers.

আর সেই গয়না হতেই হবে সোনার। আর তাই স্বাভাবিকভাবেই পাত্রীর বাবা বা অভিভাবকের উপরে সেই সোনার গয়না (Gold Rate) কেনার চাপ তৈরি হয়ে যায়। যদিও বর্তমানে মেয়েরা নিজেরাই স্বনির্ভর হওয়ার ফলে এই পণ প্রথা কিছুটা হলেও কমেছে। তবে ওই যে সোনার গয়নার প্রতি আকর্ষণ সেটা এখনো কমেনি বললেই চলে। তাই এবার জেনে নেওয়া যাক, সোনা এবং রুপোর গয়না কেনার ক্ষেত্রে নতুন নিয়ম (Gold and Silver Buying New Rules) এসেছে।

Ad

যে নিয়মের ফলে খুব সহজেই এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় সোনা বা রুপোর গহনা (Gold And Silver Jewellery) কিনে নিয়ে যাওয়া সহজ হবে না। এবার নতুন নিয়মে কি বলা হয়েছে, সেটা একবার বিস্তারিত দেখে নেওয়া যাক। তাহলে সোনা ও রুপোর গহনা কেনার ক্ষেত্রে যথেষ্ট সুবিধা হবে। নতুন নিয়মে প্রথমেই সোনা (Gold Rate In West Bengal) এবং রুপোর মতো ধাতু এবং রত্নকে ই-ওয়ে বিলের (E-Way Bill For Gold and Silver) আওতায় নিয়ে আসা হচ্ছে।

আর তার ফলে এক রাজ্য থেকে অন্য রাজ্যে সোনা ও রুপোর গয়না নিয়ে যাওয়ার ক্ষেত্রে ইলেকট্রনিক বিলের দরকার পড়বে। নয়া নিয়ম অনুযায়ী, এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় ২ লক্ষ টাকার কম মূল্যের গয়না (Gold Rate In India) নিয়ে গেলে কোনো E-Way Bill লাগবে না। তবে তার বেশি যদি হয় তবে ই- ওয়ে বিলের দরকার হবে। এই নিয়মটি দোকানদার এবং খরিদ্দার উভয়ের জন্যই প্রযোজ্য হবে। Central Board of Indirect Taxes and Customs দ্বারা জারি করা নির্দেশিকায় বলা হয়েছে।

এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় যে কেউ সোনা (Gold Rate In Kolkata) ও রুপোর এই গহনা নিয়ে যান, তাকে ই- ওয়ে বিল দিতে হবে। প্রশ্ন উঠছে, গহনা যদি বদল করা হয়, তাতেও কি লাগবে? এই প্রসঙ্গে CBIC জানাচ্ছে, যদি গয়না বদলাতে হয় তাহলেও ই- ওয়ে বিল লাগবে। 2 লক্ষ টাকার বেশি গয়না বিক্রি করতে গেলেই E-Way বিল লাগবে।

রাজ্যের মধ্যেও কি এই বিলের প্রয়োজন রয়েছে? এই বিষয়ে CBIC বলছে, রাজ্যের মধ্যেও এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় সোনা এবং রুপোর গহনা (Gold Rate Today) নিয়ে গেলে ই ওয়ে বিল প্রয়োজন হবে। তাছাড়া গয়না প্রমাণিত হবে না। অনলাইন গয়না কেনাকাটার ক্ষেত্রেও একটি বিশেষ নম্বর তৈরি হবে। যার পাশাপাশি এই E-Way বিল তৈরি করা যাবে। ই-কমার্স সাইট থেকে যদি গয়না কেনা হয় তাহলেও ই- ওয়ে বিল লাগবে।

তবে একটা জায়গায় ছাড় দেওয়া হচ্ছে। সি বি আই সির বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, নিরাপত্তার কারণে ব্যবসায়ীরা গয়না বহনকারী যানবাহনের বিস্তারিত বিবরণ দেওয়া থেকে ছাড় পেতে পারেন।
তবে কিছু জায়গায় ই- ওয়ে বিল তৈরিকেও ছাড় দেওয়া হয়েছে। বিমানবন্দর, এয়ার কার্গো কমপ্লেক্স, বন্দর, কাস্টমস স্টেশন, কন্টেনার মালবাহী স্টেশন এর মত জায়গায় এই বিল কার্যকর হবে না।

Leave Rules (ছুটির নিয়ম)

এমনিতে GST আইনে ৫০ হাজার টাকার উপরে সব পণ্যের ই- ওয়ে বিল লাগে। তবে গয়নার (Gold Rate) ক্ষেত্রে সেটা 2 লক্ষ টাকা করা হয়েছে। কবে থেকে প্রযোজ্য হতে চলেছে এই নতুন নিয়ম? যা জানা গিয়েছে, তাতে ১ অক্টোবর থেকেই রাজ্যগুলি তাদের সুবিধা অনুযায়ী এই নিয়ম কার্যকর করতে হবে। তবে জুয়েলার্স অ্যাসোসিয়েশনের মতে, এই নতুন নিয়ম আসায় গহনার ব্যবসায় জটিলতা বাড়বে।

PMJAY – 5 লক্ষ টাকা পাবেন কেন্দ্রের এই প্রকল্পে, কারা আবেদনের যোগ্য দেখুন।

এখনো পর্যন্ত হলমার্ক সিস্টেম পুরোপুরি চালু করা যায়নি। আর এই নতুন নিয়মে সাধারন মানুষকেও গয়না কেনার জন্য ই- ওয়ে বিল নিতে হবে। কিন্তু যেই সকল নাগরিকেরা নিজেদের এলাকাতে বা রাজ্যে এই সোনার গয়না (Gold Rate) কিনবেন তাদের কোন ধরণের সমস্যায় পরতে হবে না। এছাড়াও আপনারা গয়না কেনার সময় এই সকল বিষয় সম্পর্কে বিস্তারিত দোকানদার এর কাছ থেকে জেনে নেবেন।

Systematic Withdrawal Plan – মাত্র 10 হাজার টাকা জমিয়ে সারা জীবন প্রতিমাসে পান 17 হাজার

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

string(100) ""