স্কলারশিপ

আবেদন করুন এইচডিএফসি স্কলারশিপে এবং পেয়ে যান সর্বোচ্চ ১,০০,০০০ টাকার অনুদান।

Adv

সমগ্র দেশের তথা পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন প্রত্যন্ত গ্রামের পিছিয়ে পড়া শ্রেণীর ছাত্র-ছাত্রীরা অধিকাংশ ক্ষেত্রেই তাদের অর্থনৈতিক দুরবস্থার কারণে উচ্চশিক্ষা লাভ করতে পারেন না। আর অর্থনৈতিকভাবে দুর্বল এবং পিছিয়ে পড়া শ্রেণীর এই সমস্ত ছাত্রছাত্রীদের জন্য বিভিন্ন ধরনের স্কলারশিপ কার্যকরী করা হয়েছে, তা সে রাজ্য সরকারের তরফ থেকেও কিংবা কেন্দ্র সরকারের তরফে অথবা বিভিন্ন বিখ্যাত বেসরকারি, স্বেচ্ছাসেবী প্রতিষ্ঠানগুলির তরফে। আর আজ আমরা ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য এমনই এক বিশেষ স্কলারশিপের খবর নিয়ে হাজির হয়েছি।

HDFC ব্যাংকে তরফে কার্যকরী এই স্কলারশিপটি এইচডিএফসি স্কলারশিপ বা HDFC Scholarship নামে সমগ্র ভারতে পরিচিত। সমগ্র ভারতে যেসমস্ত ছাত্রছাত্রীরা তাদের আর্থিক দুরবস্থার কারণে তাদের শিক্ষাসম্পন্ন করতে পারছে না অথবা বিশেষ কোনো সংকটাপন্ন পরিস্থিতির কারণে তাদের শিক্ষা লাভের প্রক্রিয়া ব্যাহত হচ্ছে সেই সমস্ত ছাত্র-ছাত্রীদের এইচডিএফসি ব্যাংকের তরফে এই স্কলারশিপ প্রদান করা হয়ে থাকে। তবে এই স্কলারশিপের অধীনে ছাত্র-ছাত্রীদের শুধুমাত্র অনুদান প্রদান করা হয় না। এর পাশাপাশি ছাত্রছাত্রীরা মেন্টরশিপ এবং বিনামূল্যে কেরিয়ার কাউন্সিলিং এর সুবিধাও পেয়ে থাকেন।

Ad

আবশ্যিক যোগ্যতা:-
১. একাদশ শ্রেণি থেকে শুরু করে স্নাতক স্তরে এমনকী প্রফেশনাল কোর্সে পাঠরত ছাত্রছাত্রীরা পর্যন্ত এই স্কলারশিপে আবেদন করতে পারেন।

২. এই স্কলারশিপে আবেদনের ক্ষেত্রে আবেদনকারী ছাত্রছাত্রীকে পূর্ববর্তী পরীক্ষায় অন্ততপক্ষে ৬০ শতাংশ নম্বর পেতে হবে।

৩. এমনকী যেসমস্ত ছাত্রছাত্রীরা ৪০ শতাংশ অক্ষম এবং যাদের প্রতিবন্ধী সার্টিফিকেট রয়েছে তারা এই স্কলারশিপের অধীনে আবেদন করতে পারবেন। এই সমস্ত ছাত্রছাত্রীদের ক্ষেত্রে বিগত পরীক্ষায় ৫০ শতাংশ নম্বর হলেই আবেদনের সুযোগ রয়েছে। এই সমস্ত ছাত্রছাত্রীদের ক্ষেত্রে পরিবারের বাৎসরিক ইনকাম ৮ লক্ষ টাকা বা তার কম হলেও তারা স্কলারশিপের অনুদানের জন্য আবেদন করতে পারবেন।

৪. এর পাশাপাশি যেসমস্ত ছাত্রছাত্রীরা বর্তমানে একাদশ কিংবা দ্বাদশ শ্রেণীতে পড়াশোনা করছেন অথবা দ্বাদশ শ্রেণীর ফাইনাল পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছেন এবং যেকোনো পরিচিত কোচিং সেন্টার থেকে NEET, JEE, CLAT এবং NIFT এর মতো পরীক্ষাগুলির জন্য কোচিং নিচ্ছেন তারা এই স্কলারশিপের অধীনে অনুদানের জন্য আবেদনের যোগ্য। এই সমস্ত ছাত্রছাত্রীদের ক্ষেত্রে দ্বাদশ শ্রেণীতে অন্ততপক্ষে ৮০ শতাংশ নম্বর পেলে তারা আবেদনের যোগ্য বলে বিবেচিত হবেন।

তিন মাসের জন্য বাতিল করা হলো বাংলার গুরুত্বপূর্ণ ১২ ট্রেন

৫. আবেদনকারী ছাত্র কিংবা ছাত্রীকে অবশ্যই ভারতের নাগরিক হতে হবে।

৬. আবেদনকারী ছাত্রছাত্রীদের পরিবারের বাৎসরিক ইনকাম ৬ লক্ষ টাকা কিংবা তার চেয়ে কম হতে হবে।

৭. এইচডিএফসি ব্যাংক এবং Buddy4Study এর অধীনে কর্মরত ব্যক্তিদের সন্তানরা এই স্কলারশিপের অধীনে আবেদনের যোগ্য নন।

অনুদান:-
১. HDFC Scholarship 2022-23 for Class 11 and 12 Students:- যেসমস্ত ছাত্রছাত্রীরা সদ্য দশম শ্রেণীতে পাশ করে ৬০ শতাংশ নম্বর নিয়ে একাদশ শ্রেণীতে উত্তীর্ণ হয়েছে অথবা একাদশ শ্রেণীতে ৬০ শতাংশ নম্বর নিয়ে উত্তীর্ণ হয়ে দ্বাদশ শ্রেণীতে পড়াশোনা করছেন তারা এই স্কলারশিপের অধীনে অনুদান পাবেন। এই স্কলারশিপের আওতায় থাকা ছাত্রছাত্রীরা ১৮ হাজার টাকা পাবেন।

২. HDFC Scholarship 2022-23 for General Graduation Students:- যেসমস্ত ছাত্রছাত্রীরা সদ্য দ্বাদশ শ্রেণীতে পাশ করে ৬০ শতাংশ নম্বর নিয়ে ভারতের যেকোনো ইউনিভার্সিটির অধীনে বি.এ, বি.কম, বি.এসসি সহ বিভিন্ন কোর্সে পড়াশোনা করছেন তারা এই স্কলারশিপের অধীনে অনুদান পেয়ে থাকেন। এক্ষেত্রে ছাত্রছাত্রীরা ৩০ হাজার টাকা অনুমান হিসেবে পেয়ে থাকেন।

৩. HDFC Scholarship for Professional Graduation Students 2022-23:- যেসমস্ত ছাত্রছাত্রীরা দ্বাদশ শ্রেণীতে সাত শতাংশ নম্বর নিয়ে উত্তীর্ণ হওয়ার পর ভারতের যেকোনো পরিচিত ইউনিভার্সিটি থেকে BTech, MBBS, B.Arch, Nursing, BA-LLB, Fashion, BBA, BCA সহ বিভিন্ন প্রফেশনাল কোর্সগুলিতে পড়াশোনা করছেন তারা এই স্কলারশিপের অধীনে অনুদান পেয়ে থাকেন। এক্ষেত্রে শিক্ষার্থীরা ১ লক্ষ টাকার অনুদান পেয়ে থাকেন।

৪. HDFC Scholarship 2022-23 for Students with Disabilities:- যেসমস্ত প্রতিবন্ধী ছাত্র-ছাত্রীরা একাদশ অথবা দ্বাদশ শ্রেণীতে পড়াশোনা করছেন অথবা দ্বাদশ শ্রেণীতে উত্তীর্ণ হওয়ার পরে যেকোন ক্ষেত্রে গ্র্যাজুয়েশন, ডিপ্লোমা কিংবা ITI স্তরে পাঠরত অথবা যেকোনো ভোকেশনাল কোর্সে পড়াশোনা করছেন তারা এই স্কলারশিপের অধীনে অনুদান পাবেন। এক্ষেত্রে একাদশ এবং দ্বাদশ শ্রেণীতে পাঠরত ছাত্রছাত্রীদের ২৪ হাজার টাকা, বি.এ, বি.কম, বি.এসসি এর মতো কোর্সগুলিতে স্নাতক স্তরে পাঠরত ছাত্র-ছাত্রীদের ক্ষেত্রে ৪০,০০০ টাকা এবং BTech, MBBS, LLB, B Arch, Nursing এর মতো কোর্সগুলিতে পাঠাও তো ছাত্রছাত্রীদের ক্ষেত্রে ১ লক্ষ টাকার অনুদান দেওয়া হয়ে থাকে।

৫. HDFC Scholarship for Competitive Exams Coaching 2022-23:- যে সমস্ত ছাত্রছাত্রীরা বর্তমানে একাদশ কিংবা দ্বাদশ শ্রেণীতে পাঠরত অথবা দ্বাদশ শ্রেণীতে উত্তীর্ণ হওয়ার পরে NEET, JEE, CLAT এবং NIFT এর মতো পরীক্ষাগুলির জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছেন তারা এই স্কলারশিপের অধীনে অনুদান পেয়ে থাকেন। এক্ষেত্রে এই সমস্ত ছাত্রছাত্রীদের ৭২,০০০ টাকা পর্যন্ত অনুদান দেওয়া হয়ে থাকে।

আবেদন প্রক্রিয়া:-
১. এই স্কলারশিপের অধীনে আবেদনের ক্ষেত্রে প্রথমেই আপনাকে Buddy4Study -এর অফিসিয়াল ওয়েবসাইট https://www.buddy4study.com/page/hdfc-ltds-badhte-kadam-scholarship -এ যেতে হবে।

২. এরপর আপনার যোগ্যতা অনুসারে আপনি যে স্কলারশিপের অধীনে আবেদনের যোগ্য সেই স্কলারশিপের ক্যাটাগরির অধীনে থাকা Apply Now অপশনে ক্লিক করতে হবে।

৩. Apply Now বাটানে ক্লিক করার পর আপনাকে নিজের গুগল অ্যাকাউন্ট অথবা ইমেইল অ্যাড্রেস কিংবা মোবাইল নম্বরের মাধ্যমে রেজিস্ট্রেশন এর প্রক্রিয়াটি সম্পন্ন করতে হবে। রেজিস্ট্রেশনের প্রক্রিয়াটি সম্পন্ন হলেই আপনার কাছে যে পরবর্তী ওয়েব পেজটি আসবে তাতে থাকা Start Application অপশনটিতে আপনাকে ক্লিক করতে হবে।

৪. উপরোক্ত অপশনে ক্লিক করলেই আপনার সামনে এইচডিএফসি স্কলারশিপ এর ক্ষেত্রে আবেদনের জন্য প্রয়োজনীয় আবেদনপত্রটি চলে আসবে। এরপর ওই আবেদনপত্রটি সঠিকভাবে পূরণ করতে হবে এবং প্রয়োজনীয় সমস্ত ডকুমেন্টসগুলি সঠিকভাবে আপলোড করতে হবে।

৫. এরপর নিচে থাকা Terms and Conditions গুলি একসেপ্ট করে preview অপশনে ক্লিক করলে আপনি রিভিউ দেখতে পারবেন। সমস্ত তথ্য সঠিক থাকলে Submit অপশনে ক্লিক করলে আবেদনের প্রক্রিয়াটি সম্পন্ন হবে।

প্রয়োজনীয় নথি:-
১. আবেদনকারীর সদ্যতোলা পাসপোর্ট সাইজের ছবি।
২. বিগত পরীক্ষার মার্কশিট।
৩. আইডেন্টিটি প্রুফ (আধার কার্ড/ ভোটার কার্ড/ড্রাইভিং লাইসেন্স/ PAN কার্ড)
৪. বর্তমান কোর্সে ভর্তি প্রমাণপত্র।
৫. ব্যাংকের পাস বই অথবা ক্যান্সেল চেক।
৬. বাৎসরিক আয়ের প্রমাণ পত্র।
৭. কোনোক্ষেত্রে যদি ছাত্রছাত্রীরা সংকটে পণ্য অবস্থায় থাকেন তবে সেই অবস্থার প্রমাণপত্র।
৮. প্রতিবন্ধী সার্টিফিকেট।

নির্বাচনের প্রক্রিয়া:-
এইচডিএফসি স্কলারশিপ এর জন্য বিভিন্ন স্তরে যোগ্য ছাত্রছাত্রীদের নির্বাচন করা হয়ে থাকে। এক্ষেত্রে প্রথমেই ছাত্রছাত্রীদের বিগত পরীক্ষার ফলাফল এবং আর্থসামাজিক অবস্থার ভিত্তিতে শর্টলিস্ট করা হয়ে থাকে। এরপরে ওই সমস্ত ছাত্র-ছাত্রীদের টেলিফোনের মারফত ইন্টারভিউ নেওয়া হয়ে থাকে। এই ইন্টারভিউতে যেসমস্ত ছাত্রছাত্রীরা উত্তীর্ণ হন তারাই এই স্কলারশিপের অধীনে অনুদান পাওয়ার যোগ্য হিসেবে বিবেচিত হন। তবে বিশেষ অবস্থার ভিত্তিতে ছাত্রীদের এবং যেসমস্ত ছাত্র অথবা ছাত্রী পারিবারিক দিক থেকে অথবা শারীরিক দিক থেকে বিশেষভাবে সংকটাপন্ন তাদের অগ্রাধিকার দেওয়া হয়ে থাকে।

আবেদনের সময়সীমা:-
বর্তমানে এই স্কলারশিপের অধীনে অনুদান পাওয়ার জন্য আবেদনের প্রক্রিয়া চলছে। আবেদনের ক্ষেত্রে শেষ তারিখ ৩০শে নভেম্বর,২০২২।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

string(94) ""