প্রকল্প

Krishak Bandhu – কৃষকদের বিনামূল্যে নতুন সেচযন্ত্র দেবে পশ্চিমবঙ্গ সরকার। এইভাবে আবেদন করলেই পাবেন।

Adv

আমাদের দেশ ভারতবর্ষ কৃষিপ্রধান দেশ। আর তার সাথে আমাদের রাজ্য পশ্চিমবঙ্গ কৃষিকাজে অনেক উন্নত (Krishak Bandhu). আমাদের রাজ্য থেকে প্রায় অনেক রাজ্যেই ফসল যায়। তবে কৃষিতে উন্নত হওয়া সত্বেও রাজ্যের বেশিরভাগ করিসক দরিদ্রসীমার নিচে বসবাস করছে। এই কারনে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী কৃষকদের (Farmers) আর্থিক সাহায্য করার জন্য 2019 সালে কৃষক বন্ধু প্রকল্প (Krishak Bandhu Scheme) চালু করে।

West Bengal Krishak Bandhu Farmers Get New Benefit.

এই Krishak Bandhu মাধ্যমে কৃষকদের বছরে সর্বাধিক 10,000 টাকা দেওয়া হয়। এই টাকা দুইটি কিস্তিতে দেওয়া হয়। তবে এবার এই প্রকল্প ছাড়াও আরো একটি প্রকল্পের মাধ্যমে কৃষকদের জন্যে নতুন ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে সরকারের তরফ থেকে। রাজ্যের ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক কৃষকদের জন্য দারুন ঘোষনা করল পশ্চিমবঙ্গ সরকার (Government Of West Bengal). তাদের চাষের কাজে সাহায্য করার জন্যে আধুনিক সরঞ্জাম দেবে রাজ্য সরকার বিনামূল্যে (Free Agriculture Equipment).

রাজ্য সরকারের চালু করা ‘কৃষি সেচ যোজনার’ মাধ্যমেই এই সুবিধা দেওয়া হবে ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক কৃষকদের। তাদের কে বিনামূল্যে ফোয়ারা সেচের জন্য স্প্রিঙ্কলার এবং বিন্দু সেচের জন্যে ড্রিপ দেওয়া হবে। এই দুইটি অনুসেচ উপকরণ পাওয়া যাবে একদম বিনামূল্যে শুধু মাত্র GST এর টাকা টুকু দিতে হবে। Krishak Bandhu দের জন্য এইটি খুবই এক খুশির খবর।

Why Free Irrigation Equipment Will Provided?

বাঁকুড়া জেলা কৃষি অধিকর্তা জানান, এই প্রকল্পের মুল উদ্দেশ্য হল গরিব কৃষকদের বিনামূল্যে সেচের সরঞ্জাম দিয়ে কৃষিকাজে ফসল উৎপাদনে সাহায্য করা। রাজ্য সরকারের এই Krishak Bandhu প্রকল্পের আওতায় কৃষকদের (Indian Farmers) জন্য ক্ষুদ্র সেচ সুবিধা দেওয়া হচ্ছে, যার ফলে এটি কৃষিক্ষেত্রে জলের চাহিদা পূরণ করবে। সর্বোপরি জলের অপচয় কমাতে সাহায্য করবে।

বাঁকুড়া (Bankura) শুষ্ক অঞ্চল বলে সেখানে এই জলের সেচের এবং পানীয় জলের গুরুত্ব অপরিসীম। এইখানে প্রতি বছর কৃষিকাজে জলের সঙ্কট দেখা যায়। তাই কৃষিকাজে যাতে জলের সঙ্কট দেখা না যায় তার জন্যে কৃষি সেচ যোজনার অধীনে ক্ষুদ্র ও গরিব কৃষকদের (Krishak Bandhu) স্প্রিঙ্কলার সেচ এবং অন্যটি ড্রিপ সেচযন্ত্র বিনামূল্যে দেওয়া হবে শুধু GST চার্জ দিতে হবে।

স্প্রিঙ্কলার সেচ মেশিন বসাতে খরচ হয় 20 হাজার টাকা আর ড্রিপ সেচ মেশিন বসাতে খরচ হয় 70 হাজার টাকা। স্বাভাবিকভাবেই গরিব কৃষকদের পক্ষে এই দামি মেশিন কেনা সম্ভব নয়। আর তাই রাজ্য সরকারের তরফ থেকে গরিব কৃষকদের (Krishak Bandhu) এই দুটি মেশিন বিনামূল্যে দেওয়া হবে এবং রাজ্য সরকারই ইনস্টল করে দেবে। শুধুমাত্র GST এর 12% টাকা কৃষিকদের দিতে হবে।

EMPS Scheme (ইলেকট্রিক মোবিলিটি প্রমোশান স্কিম)

আর এই যোজনা বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে বাঁকুড়া জেলার নাম সবার প্রথমে আছে। এই সব ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক কৃষকদের 100% অনুদান দেবে সরকার। আর অন্য কৃষকদের জন্য এই অনুদান এর পরিমান 45 শতাংশ। এই প্রকল্পে নাম নথিভুক্ত করার জন্য সবার প্রথমে Krishak Bandhu প্রকল্পে নাম নথিভুক্ত করা থাকতে হবে। আর এই কারণের জন্যই অনেকেই এই আবেদন করতে চাইছেন। কিন্তু কিভাবে এই কাজ করবেন জেনে নিন।

মহিলাদের 5 লক্ষ টাকার সুবিধা দিচ্ছে কেন্দ্র সরকার। এই প্রকল্পে কিভাবে আবেদন করবেন।

Krishak Bandhu Scheme Online Apply Process

এই Krishak Bandhu প্রকল্পে আবেদন করার জন্যে মোবাইল নম্বর লিংক করা আধার কার্ড, জমি সংক্রান্ত নথি, ব্যাঙ্কের পাস বই, পাসপোর্ট সাইজ রঙিন ছবি থাকতে হবে। তারপর www.wbpmksy.org এই ওয়েবসাইটে গিয়ে ফর্ম ফিলআপ করতে হবে তাহলেই হবে। আর কিছু না আমাদের সকলের অন্নদাতা কৃষকদের জন্য এই ঘোষণার ফলে খুশি হয়েছেন সকলে।
Written by Ananya Chakraborty.

কৃষকদের টাকা দিচ্ছে সরকার। যাদের একাউন্টে টাকা ঢোকেনি, তারা এই কাজ করুন।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

string(108) ""