প্রকল্প

Govt Scheme – রাজ্য সরকারের বড় উদ্যোগ নাগরিকদের জন্য। এখন থেকে আরও সুবিধা পাবেন।

Adv

রাজ্যের খেটে খাওয়া দিনমজুর শ্রমিকদের জন্য নতুন প্রকল্প (Govt Scheme) চালু করল রাজ্য সরকার (Govt Of West Bengal) রাজ্যের দিনমজুর শ্রমিকদের জন্য চালু করা এই নতুন প্রকল্পের নাম হল ‘নির্মাণ কর্মী প্রকল্প’। সরকারি তথ্য অনুযায়ী, এই প্রকল্পের নাম ‘নির্মাণ কর্মী প্রকল্প’ হলেও রাজ্যের সাধারণ নাগরিকদের কাছে এটি ‘লেবার কার্ড’ নামে পরিচিত। মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির ঘোষণা করা এই নতুন সামাজিক প্রকল্পের হাত ধরে বাংলার নির্মাণ কর্মী ও তাঁদের পরিবারের দুঃখ অনেকটাই দূর হবে বলে মনে করা হচ্ছে।

Labour Card Govt Scheme Benefits Details.

২০১১ সালে রাজ্যে ক্ষমতায় আসার পর থেকে রাজ্যের সাধারণ মানুষদের জন্য একের পর এক সামাজিক প্রকল্প (Govt Scheme) চালু করেছে পশ্চিমবঙ্গ সরকার। রাজ্য সরকারের সেই সকল প্রকল্প গুলি দেশ ছাড়িয়ে বিশ্বের দরবারেও অসংখ্য সুনামের সাথে বহু পুরস্কারও অর্জন করেছে। কিন্তু এবার যে মানুষগুলো সব সময় ঝুঁকির মধ্যে কাজ করেন, যেকোনও সময় দুর্ঘটনার মুখে পড়েন সেই নির্মাণ শ্রমিকদের জন্য এক দারুণ প্রকল্প চালু করলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

Ad

লোকমুখে প্রচলিত ‘লেবার কার্ড’ নামের সঙ্গে নির্মাণ শ্রমিক প্রকল্পের (Govt Scheme) বৈশিষ্ট্যের হুবহু মিল আছে। এই প্রকল্পের মূল উদ্দেশ্য হল জীবনের ঝুঁকি নিয়ে কাজ করা নির্মাণ কর্মীদের পরিবারকে আর্থিক ও সামাজিক নিরাপত্তা প্রদান করা। রাজ্য সরকারের নির্মাণ শ্রমিক প্রকল্পের সুবিধা সকল মানুষেরা পাবেন না। যে সকল ব্যক্তিরা নির্মাণ শ্রমিক প্রকল্পের সুবিধা পাবেন তারা হলেন।

1) সংশ্লিষ্ট নির্মাণ কর্মীকে অবশ্যই পশ্চিমবঙ্গের স্থায়ী বাসিন্দা হতে হবে।
2) নির্মাণ কর্মীর বয়স হতে হবে ১৮ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে।
3) বিগত বছরে সংশ্লিষ্ট নির্মাণ কর্মীকে অন্তত ৯০ দিন কাজ করে থাকতে হবে।
4) আবেদনকারী নির্মাণ কর্মীকে অসংগঠিত ক্ষেত্রের কর্মীরা এই প্রকল্পে (Govt Scheme) আবেদনের যোগ্য।

সড়ক, রেল, ভবন নির্মাণ, জলসেচ, ট্রামলাইন, বিমানবন্দর, জল ও বিদ্যুৎ সরবরাহ, জলাধার বাঁধ, খনি, গ্যাস পাইপলাইন, সুড়ঙ্গ তৈরি, টাওয়ার নির্মান, মেরামতি ও রক্ষাণাবেক্ষণের কাজে যুক্ত কর্মী হতে হবে।উপরোক্ত পেশার থেকে বাইরের পেশার সঙ্গে যুক্ত কর্মীরা এই প্রকল্পে (Govt Scheme) যোগ দিতে পারবেন না, কেবলমাত্র নির্মাণ শ্রমিকদের জন্যই এই প্রকল্প নিয়ে আসা হয়েছে। নির্মাণ শ্রমিক প্রকল্পের লেবার কার্ড ব্যবহারের ক্ষেত্রে বেশ কিছু সুবিধা রয়েছে।

1) এই কার্ড (Labour Card Govt Scheme) থাকলে দুর্ঘটনাজনিত চিকিৎসার জন্য ১০০০ থেকে ৫০০০ টাকা পর্যন্ত পেতে পারেন কোনো ব্যক্তি।
2) শরীরের কোনো অঙ্গে অস্ত্রোপচারের জন্যে ৩০০০০ টাকা পর্যন্ত আর্থিক সাহায্য পাবেন।
3) দূর্ঘটনায় পঙ্গু হলে ২৫০০০ টাকা পর্যন্ত অনুদান পাবেন ওই ব্যক্তি।
4) নির্মাণের কাজে নিযুক্ত কর্মী যক্ষা রোগে আক্রান্ত হলে ৩০০০ টাকা পাবেন।

5) নির্মাণ কাজের সাথে যুক্ত ব্যক্তি পরিবারের চিকিৎসার জন্য বছরে সর্বোচ্চ ১০০০০ টাকা পেয়ে থাকেন।
6) এই কার্ড রয়েছে এমন ব্যক্তির সাধারণ মৃত্যু হলে ৩০০০ টাকা এবং নির্মাণ কাজে কর্তব্যরত অবস্থায় মৃত্যু হলে তার পরিবারকে ১০০০০০ টাকা পর্যন্ত দেওয়া হয়।

7) ৬০ বছরের ঊর্ধ্বে বয়স হলে নির্মাণ কর্মীকে মাসে ৮৭০ টাকা পর্যন্ত পেনশন পেয়ে যাবেন। কর্মীর মৃত্যু হলে স্ত্রী অর্ধেক টাকা পেনশন পাবেন।
8) নির্মাণ কর্মীরা প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি কেনার জন্য এককালীন ১০০০ টাকা পাবেন।
9) নির্মাণ কর্মীরা চশমা কেনার (Govt Scheme) জন্য ৫০০ টাকা অনুদান পেয়ে যাবেন।

10) নির্মাণকর্মী মহিলারা গর্ভবতী হলে গর্ভাবস্থায় বছরে ৬০০০ টাকা এবং কোনো কারণে গর্ভপাতের প্রয়োজন হলে ৪০০০ টাকা পাবেন।
11) নির্মাণকর্মীর সন্তানদের পড়াশোনার জন্য ১৫০০০ টাকা পর্যন্ত আর্থিক সাহায্য (Govt Scheme Financial Benefits) পেয়ে যাবেন।
12) নির্মাণ কর্মী বাড়ি তৈরি করতে চাইলে ৫ শতাংশ সুদে ৫০ হাজার টাকা পর্যন্ত আর্থিক সহায়তা করা হবে।

13) সাইকেল কেনার জন্য ৫০০০ টাকা পেতে পারেন লেবার কার্ডের (Govt Scheme) হোল্ডাররা।
14) এই কার্ড থাকলে কন্যার বিবাহের জন্য বছরে সর্বোচ্চ ১০০০০ টাকা অনুদান পেতে পারেন।
15) নির্মাণ কর্মীর অন্ত্যেষ্টি ক্রিয়ার জন্য এককালীন ৩০০০ টাকা দেওয়া হয়। যারা এই প্রকল্পে (Govt Scheme) আবেদন করবেন তারা এই টাকা পাবেন।

লেবার কার্ড করার জন্য প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস বয়সের প্রমাণপত্র আধার কার্ড (Aadhaar Card), ভোটার কার্ড (Voter Card), রেশন কার্ড (Ration Card), পাসপোর্ট সাইজ ছবি, ব্যাঙ্কের পাস বই (Bank Passbook), স্থানীয় প্রশাসনের কর্তৃক কাজের প্রমাণপত্র, রেজিষ্ট্রেশন ফি (Registration Fees) বাবদ ২০ টাকা। লেবার কার্ড করার করার জন্য বিভিন্ন পদ্ধতি রয়েছে।

Top 5 Restaurants (সেরা ৫ টি রেস্টুরেন্ট)
  1. প্রথমে eDistrict এর অফিশিয়াল ওয়েবসাইটে যেতে হবে।
  2. নতুন হলে নাম রেজিস্ট্রেশন করতে হবে। এরপর User Id ও Password দিয়ে লগইন করতে হবে।
  3. এরপর একটি নতুন পেজ ওপেন হবে। এবার সেখানে অ্যাপলাই ফর লেবার কার্ড অপশনে ক্লিক করতে হবে।
  4. এরপর প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস সহযোগে আবেদন ফর্মটি ভালোভাবে পূরণ করে সাবমিট করলেই আবেদন প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ হয়ে যাবে।
  5. সফলভাবে আবেদনের পরে অনলাইন থেকে লেবার কার্ড (Govt Scheme) ডাউনলোড করতে পারা যাবে।

Dearness Allowance – পশ্চিমবঙ্গের শিক্ষক ও সরকারি কর্মীদের বকেয়া ডিএ নিয়ে অনিশ্চয়তা আরও বাড়লো।

কলকাতার বাসিন্দা হলে পশ্চিমবঙ্গ নির্মাণ কল্যাণ পরিষদ অফিস থেকে ২৭ ও ৩১ নম্বর ফর্ম পূরণ করে প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস সহযোগে এই অফিসে ফর্ম জমা করতে হবে। অন্যান্য জেলার বেলায় অনলাইনে আবেদন করতে হবে। এই লেবার কার্ডটিকে ল্যামিনেশন করে যত্ন সহকারে রেখে দিতে হবে। ভবিষ্যতে বিভিন্ন সুযোগ সুবিধা পাওয়ার ক্ষেত্রে কার্ডটি (Govt Scheme) প্রয়োজন হবে। উপরোক্ত তথ্য অনুযায়ী, যে সকল ব্যক্তিরা লেবার কার্ড পাওয়ার যোগ্য তাদের অতি দ্রুত লেবার কার্ডের জন্য আবেদন করা উচিত বলেই মনে করা হচ্ছে।

পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকারি কর্মীরা এই কাজ না করলে বন্ধ সরকারি সার্ভিস। রাজ্য সরকারের কড়া নির্দেশিকা

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

string(98) ""