প্রকল্প

নতুন বছর চালু হলো রেশন তোলার নতুন নিয়ম। জেনে নিন এখনই।

Adv

দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধির বাজারে রেশন ব্যবস্থার মাধ্যমে দৈনন্দিন খাদ্যসামগ্রী পেয়ে যাওয়া সাধারণ মানুষের কাছে যেমন স্বস্তির খবর, তেমনই রেশন নিয়ে কারচুপি যেনো এক অলিখিত নিয়ম হয়ে দাঁড়িয়েছে। এই কারচুপি ঠেকাতে বহুবার বদলানো হয়েছে রেশন তোলার নিয়ম কিন্তু কারচুপিকারীদের তাতে রোখা সম্ভব হচ্ছে না। এতে করে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন দেশের সাধারণ মানুষ, যাদের সত্যিকারের প্রয়োজন রয়েছে রেশনের।

দুর্নীতিবাজরা কখনও অন্য কারোর রেশন কার্ড নিয়ে এসে আবার কখনো ভুঁয়ো কার্ড দিয়ে এমনকী মৃত ব্যক্তিদের কার্ড নিয়ে এসে রেশন তুলে নিয়ে যাচ্ছে। এই সমস্ত দুর্নীতি ঠেকাতে সরকারের তরফ থেকে নানানরকম নিয়ম জারি করা হয়েছে এরআগে। কিন্তু তার নিট ফল শুন্য।

Ad

যেমন কিছুদিন আগে খাদ্য দফতরের এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছিলো, আধার কার্ড না থাকলেও কাউকে খালি হাতে ফেরানো যাবে না। প্রয়োজন হলে গ্রাহকদের মোবাইলে ওটিপি পাঠিয়ে রেশন দেওয়ার ব্যবস্থা করতে হবে। আর ঠিক এইভাবেই দুর্নীতিবাজদের কাছে কারচুপি করার এক সুবর্ণ সুযোগ চলে আসে। তারা গ্রাহকদের ভুল বুঝিয়ে তাদের মোবাইল নিয়ে এসে ওটিপির সাহায্যে গ্রাহকের প্রাপ্য রেশন নিজেরা তুলে নিয়ে যাচ্ছে।

রাজ্য সরকার কর্মই ধর্ম প্রকল্পের আওতায় ২ লাখ যুবক-যুবতীকে দিচ্ছে মোটর বাইক। আবেদন করুন এই ভাবে

এছাড়াও গ্রামীণ এলাকায় ওটিপি পাঠানোর ক্ষেত্রে নেটওয়ার্ক সংক্রান্ত সমস্যা রয়েই যায়, আবার আঙ্গুলের ছাপ নেওয়ার সিদ্ধান্তও কোনো কাজে আসেনি। অনেকের মতে নিয়মের গোঁড়াতেই গলদ রয়ে যায় প্রত্যেকবার। তাই সরকার এইবার আরো একটি নতুন নিয়ম আনতে চলেছে। এখন গ্রাহকদের চোখের মনি স্ক্যান করে রেশন দেওয়া হতে পারে। যেহেতু আধার কার্ড তৈরি করার সময়ে সকলের চোখের মনি স্ক্যান করে নেওয়া হয় তাই রেশন দেওয়ার সময়ও এই পদ্ধতি কার্যকর হবে বলে মনে করা হচ্ছে।

যদিও সারাদেশে এই পদ্ধতি লাঘব করা খুব একটা সহজ হবে না বলেই মনে করা হচ্ছে। এই নিয়মের পাশাপাশি যতো তাড়াতাড়ি সম্ভব সবাইকে নিজের রেশন কার্ড এর সঙ্গে আধার কার্ড এর লিঙ্ক করিয়ে নিতে বলা হচ্ছে। এখন দেখার সরকারের এই নয়া পদক্ষেপ বাস্তবে রেশনে দুর্নীতি রোধ করতে কতোটা সক্ষম হয়।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

string(130) ""