টেট

WBBPE – প্রাইমারী টেট মেরিট লিস্ট নিয়ে বড় ঘোষণা। নতুন নিয়োগ সম্ভব নয়! কি বললেন পর্ষদ সভাপতি?

Adv

আবারও প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ (WBBPE) ঘিরে অশান্তি!!! ২০২০ সালের প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ নিয়ে নয়া অভিযোগ সকলের সামনে আসতে চলেছে। ২০২০ সালে কোনো প্রশিক্ষন ছাড়াই নিয়োগ করা হয়েছিল বলে অভিযোগ করেছে চাকরিপ্রাথীরা। মঙ্গলবার প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় (Justice Abhijit Ganguly) এর এজলাসে রিপোর্ট দিয়ে জানালো যে গত নয় বছর ধরে রাজ্যে প্রাথমিক শিক্ষকদের ব্রিজ কোর্স করানো হচ্ছে না।

WBBPE President Say About Teacher Recruitment.

এরপরই মামলাকারীদের কাছে ওই রিপোর্ট এর হলফনামা চেয়ে পাঠালো বিচারপতি। এই মামলার পরবর্তী শুনানি আগামী ৪ ঠা সেপ্টেম্বর। ঐদিন প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের (WBBPE) ডেপুটি সেক্রেটারি রিপোর্ট দিয়ে আদালতে জানিয়েছেন, ২০১৫ সালে শেষ বার চাকরিরত বি এড (B.Ed) ডিগ্রিধারী প্রাথমিকের শিক্ষকদের (WB Primary Teacher) ছয় মাসের ‘ব্রিজ কোর্স’ করানো হয়েছিল।

Ad

তার পর থেকে এই কোর্স আর করানো হয়নি। যদিও প্রাথমিকের শিক্ষকের জন্য প্রশিক্ষণ কোর্স করা বাধ্যতামূলক। প্রাথমিকের শিক্ষকের জন্য বি এড (B.Ed) বা ডি এল এড D.El.Ed কোর্স করতে হয়। আগের নিয়ম অনুযায়ী, বি এড প্রশিক্ষিতরাও প্রাথমিকের শিক্ষক (WBBPE) পদে চাকরি পাবেন। তবে তাঁদের চাকরি পাওয়ার এক বছরের মধ্যে একটি ছ’মাসের ব্রিজ কোর্স করতে হয়। কারণ, বি এড প্রশিক্ষণ উচ্চ প্রাথমিক, মাধ্যমিক এবং উচ্চমাধ্যমিকস্তরের শিক্ষকতার জন্য।

হাইকোর্টে (Calcutta High Court) সাত জন চাকরিপ্রার্থী মামলা করে দাবি করেছিলেন, ২০২০ সালে প্রাথমিকের শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়ায় কয়েক হাজার বি এড ডিগ্রিধারী শিক্ষক ব্রিজ কোর্স সম্পূর্ণ করেননি। ওই কোর্স না করেই এখনও চাকরি করেছেন। এই চাকরি স্থায়ী হতে পারে না। কারণ, জাতীয় শিক্ষক শিক্ষণ পর্ষদ (NCTE) এর নিয়ম মানা হয়নি।

আদালতে মামলাকারীরা বলেন ,নতুন করে প্যানেল তৈরি করে শিক্ষক নিয়োগ করা হোক। কিন্তু পশ্চিমবঙ্গ প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ (WBBPE – West Bengal Board Of Primary Education) জানিয়েছে যে নতুন করে নিয়োগ করা সম্ভব না কারণ, ২০২০ সালের নিয়োগ প্রক্রিয়ার প্যানেলের মেয়াদ ২রা এপ্রিল শেষ হয়ে গেছে এখন ২০২২ সালের নিয়োগ চলছে। আর ২০২০ সালের নিয়োগ এ কোনো শূন্যপদ নেই।

Ration Items List (রেশন কার্ডে সামগ্রী)

মামলাকারীদের আইনজীবী তরুণজ্যোতি তিওয়ারি জানান, প্রায় ১৬,৫০০ শিক্ষক নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি দেয় পর্ষদ (WBBPE). বিজ্ঞপ্তি অনুসারে, বি এড প্রশিক্ষিত প্রার্থীদের ৬ মাসের মধ্যে ‘ব্রিজ কোর্স’ করানোর প্রয়োজন ছিল। কিন্তু প্রায় পাঁচ হাজার প্রাথমিক শিক্ষকের এখনও অবধি সেই প্রশিক্ষণ নেওয়া হয়নি। তিনি বলেন, ‘সরকারও এটা জানে, তাই ওই শিক্ষকদের বি ক্যাটেগরিতে বেতন দেওয়া হয়।

LIC New Policy – LIC এই নতুন পলিসিতে সর্বকালের সেরা রিটার্ন দিচ্ছে, আজই বিনিয়োগ করুন।

এই অবস্থায় এখন ওই শিক্ষকদের চাকরি বাতিল করে নতুন করে প্যানেল প্রকাশ করতে হবে। প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ (WBBPE) জানিয়েছে যে এখন আবার নতুন করে নিয়োগ করা সম্ভব না ২রা এপ্রিল ২০২০ সালের নিয়োগ শেষ হয়ে গেছে আর ওই নিয়োগ প্রক্রিয়ার কোনো শূন্যপদ নেই। অতএব ফের শিক্ষক নিয়োগ নিয়ে সমস্যায় চাকরিপ্রার্থীরা।

Bank Notes – পশ্চিমবঙ্গবাসীদের জন্য 2000 টাকার নোট নিয়ে নবান্নের নির্দেশ। সকলের জানা উচিত।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

string(102) ""