স্কলারশিপ

বন্ধ করা হলো স্কুল পড়ুয়াদের স্কলারশিপ, স্কুলে পড়লে আর পাওয়া যাবে না স্কলারশিপ

Adv

পশ্চিমবঙ্গ তথা ভারতবর্ষের অন্যান্য রাজ্যের ছাত্র-ছাত্রীরা তাদের পড়াশোনার ক্ষেত্রে রাজ্য সরকার এবং কেন্দ্রীয় সরকারের তরফে কার্যকরী স্কলারশিপগুলির উপর যথেষ্ট ভাবে নির্ভরশীল হয়ে থাকে। এক্ষেত্রে পিছিয়ে পড়া অনগ্রসর শ্রেণীর তপশিলি জাতি ও উপজাতি এবং ওবিসি সম্প্রদায়ভুক্ত ছাত্র-ছাত্রীদের নাম বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য। তবে এবারে কেন্দ্রীয় সরকারের তরফে এমন এক সিদ্ধান্ত নেওয়া হলো যার কারণে রীতিমতো শোরগোল পড়ে গিয়েছে পশ্চিমবঙ্গ তথা সমগ্র ভারতবর্ষের বিভিন্ন রাজ্যে বসবাসকারী ছাত্র-ছাত্রী তথা অভিভাবকদের মধ্যে।

জানা গিয়েছে যে, এই চলতি বছরে অর্থাৎ ২০২২-২৩ শিক্ষাবর্ষ থেকে কেন্দ্রীয় সরকারের তরফে এক গুরুত্বপূর্ণ স্কলারশিপের অধীনে ছাত্র-ছাত্রীদের অনুদান দেওয়া বন্ধ করে দেওয়া হবে। ইতিমধ্যেই কেন্দ্র সরকার তরফে এই নির্দেশিকা প্রকাশ করায় কোন স্কলারশিপটি বন্ধ করে দেওয়া হবে তা নিয়ে সমগ্র ভারতের সাধারণ জনগণ বারংবার প্রশ্ন তুলেছে। আর এই সমস্ত প্রশ্নের উত্তরে কেন্দ্রীয় সরকারের তরফে কারণ সহ যথার্থ উত্তর প্রকাশ্যে আনা হয়েছে। আর তাই আজ আমরা আজকের এই পোস্টে কেন্দ্র সরকারের তরফে কোন স্কলারশিপটি বন্ধ করে দেওয়া হবে, কেনো বন্ধ করে দেয়া হবে এবং এবিষয়ে কেন্দ্রীয় সরকারের তরফে সাধারণ জনগণের উদ্দেশ্যে কি জানানো হয়েছে তা সংক্রান্ত বিস্তারিত তথ্য নিয়ে হাজির হয়েছি।

Ad

জিও তার রিচার্জে সমস্ত গ্রাহককে দিচ্ছে ৪০০ টাকা ছাড়, অফার শুধুমাত্র ডিসেম্বর মাসের জন্য

কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে এক বিজ্ঞপ্তি মারফত জানানো হয়েছে যে, ২০২২-২৩ শিক্ষাবর্ষ থেকে প্রথম শ্রেণী থেকে শুরু করে অষ্টম শ্রেণীতে পাঠরত সংখ্যালঘু ছাত্রছাত্রীদের জন্য কেন্দ্রীয় সরকারের তরফে কার্যকরী প্রিম্যাট্রিক স্কলারশিপ বন্ধ করা হবে। অর্থাৎ আগামী দিনে প্রথম শ্রেণী থেকে শুরু করে অষ্টম শ্রেণীতে পাঠরত পড়ুয়ারা আর কোনোভাবেই এই স্কলারশিপের অধীনে কোনোরকম অনুদান পাবেন না। তবে নবম শ্রেণী এবং দশম শ্রেণীতে পাঠাতে পড়ুয়ারা এই স্কলারশিপের অধীনে আগের মতই অনুদান পাবেন।

যদিও কেন্দ্রীয় সরকারের তরফে এই সিদ্ধান্তের পরিপ্রেক্ষিতে যথেষ্ট কারণ উল্লেখ করা হয়েছে। ন্যাশনাল স্কলারশিপের পোর্টালে এক বিজ্ঞপ্তি মারফত কেন্দ্রীয় সরকারের তরফে জানানো হয়েছে যে, কেন্দ্রীয় সামাজিক ন্যায়বিচার ও ক্ষমতায়ন মন্ত্রক এবং আদিবাসী বিষয়ক মন্ত্রকের পরামর্শ অনুসারেই কেন্দ্র সরকারের পক্ষ থেকে এই নতুন নিয়ম কার্যকরী করা হয়েছে। এই বিজ্ঞপ্তিতে সাধারণ জনগণের উদ্দেশ্যে আরও জানানো হয়েছে যে, ২০০৯ সালে শিক্ষার অধিকার আইনের মারফত প্রথম শ্রেণী থেকে অষ্টম শ্রেণীর ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য সম্পূর্ণ বিনামূল্যে আবশ্যিক প্রাথমিক শিক্ষা ব্যবস্থা কার্যকরী করা হয়েছে। আর তাই শুধুমাত্র নবম এবং দশম শ্রেণীর ছাত্র-ছাত্রীরাই এই প্রিমেট্রিক স্কলারশিপের সুবিধা পাবেন।

এর পাশাপাশি এও জানানো হয়েছে যে, কোনোভাবেই অযোগ্য আবেদনকারীদের এই স্কলারশিপের সুবিধা দেওয়া হবে না। আবেদনকারী ছাত্র-ছাত্রীদের সমস্ত আবেদনপত্রগুলি উক্ত ছাত্র-ছাত্রীরা যে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পাঠরত সেই প্রতিষ্ঠানের নোডাল অফিসার, জেলার নোডাল অফিসার বা রাজ্যের নোডাল অফিসারদের তরফে খতিয়ে দেখা হবে এবং তারপরই এই স্কলারশিপের অধীনে অনুদান পাবেন ছাত্র-ছাত্রীরা। কেন্দ্র সরকারের তরফে সংখ্যালঘু ছাত্রছাত্রীদের প্রিম্যাট্রিক স্কলারশিপ সংক্রান্ত এই ব্যবস্থা কার্যকরী করার সিদ্ধান্তে অনেক ক্ষেত্রেই আশাহত হয়েছে প্রথম থেকে শুরু করে অষ্টম শ্রেণীতে পাঠরত শিক্ষার্থী এবং তাদের অভিভাবকেরা।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

string(85) ""