অর্থনীতি

Investment Plan – সৎপথে মাত্র 1000 টাকা বিনিয়োগে পাবেন নিশ্চিত কোটি টাকা রিটার্ন, কিভাবে? জেনে নিন।

Adv

কারো কাছে Investment Plan এর সেরা ঠিকানা পোস্ট অফিসের স্কিম, আবার কারো কাছে ব্যাংকের স্কিম। কিন্তু জানেন কী সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় কী? তা হল কম বিনিয়োগে দুর্দান্ত রিটার্ন। এই জন্য আগে এই প্রতিবেদনটি সম্পূর্ণ পড়তে ভুলবেন না। কারণ আজকে সামান্য বিনিয়োগেই কোটি টাকা রিটার্ন এর বিষয়ে বিস্তারিতভাবে জানানো হচ্ছে। কথার কথা, বন্ধু বান্ধবের সঙ্গে রেস্টুরেন্টে ট্রিট দিতে গেলেই 1000 টাকা বিল আসে। কিংবা অযথা পোশাক আশাক কিনতে গেলেও একটা দামী ড্রেসের পেছনেই খরচ হয়ে যায় 1000 টাকা।

Investment Plan

এই সামান্য টাকা যদি জমানো যায়, মাত্র কয়েক বছরেই মিলবে কোটি টাকা রিটার্ন। কোন স্কিম? জানতে নিশ্চয়ই ইচ্ছে করছে? এই নামটি প্রায় সকলেই জানেন। বর্তমানে FD বা ফিক্সড ডিপোজিটের পাশাপাশি এতেও অনেকেই বিনিয়োগ করে থাকেন। এটি হল SIP বা সিস্টেমিক ইনভেস্টমেন্ট প্ল্যান। বর্তমানে এসআইপিতে বিনিয়োগ অত্যন্ত জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। আর এর মাধ্যমে কোটি টাকা রিটার্ন পাওয়ার অন্যতম কারণ হল চক্রবৃদ্ধি হারে সুদ।

Ad

কত বছরের জন্য Investment Plan করা ভালো?
বিশেষজ্ঞদের মতে, SIP তে কমপক্ষে ২০ থেকে ৩০ বছরের জন্য বিনিয়োগ করলে মেয়াদ শেষে দুর্দান্ত রিটার্ন পাওয়া যাবে। আরো সুবিধার বিষয় হল একেবারে অনেক টাকা বিনিয়োগ করতে হয় না। অল্প অল্প করে বিনিয়োগ করা যাবে। যদি কোনো ব্যক্তি ২০ বা ৩০ বছরের জন্য বিনিয়োগ করেন, পাবেন ১৬ থেকে ২০% পর্যন্ত রিটার্ন।

কেন্দ্রীয় সরকারের স্বাস্থ্য বিমা প্রকল্প এখন রাজ্যে, পাওয়া যাবে একাধিক সুবিধা, আবেদন করুন এখনি।

এবার আসা যাক, কিভাবে 1000 টাকা বিনিয়োগে কোটি টাকা রিটার্ন পাবেন?
ধরা যাক, কোনও ব্যক্তি মাসে ১,০০০ টাকা করে বিনিয়োগ করছেন ৩০ বছরের জন্য। তাতে বার্ষিক ২০% রিটার্ন দিলে পাবেন ২ কোটি টাকা। অর্থাৎ ব্যক্তি যদি ২৫ বছর বয়সে বিনিয়োগ শুরু করেন ৫৫ বছর বয়সে ব্যাংক ব্যালেন্স থাকবে ২ কোটি টাকা। এর সবথেকে বড় কারণ হল চক্রবৃদ্ধি হারে সুদ।

অর্থাৎ বিনিয়োগকারী পাবেন সুদের উপর সুদ। তার উপর সুদ। এই করে করে নির্দিষ্ট মেয়াদ শেষে কোটি টাকা রিটার্ন। তবে যদি ১৬.৬% রিটার্ন থাকে তাও সমস্যা নেই। সেক্ষেত্রে পাওয়া যাবে ১ কোটি টাকার অধিক। তবে বিনিয়োগের আগে অবশ্যই পরিকল্পনা করে নেওয়া জরুরি। তাছাড়া প্রয়োজনে বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিয়ে তারপর বিনিয়োগ করতে পারেন।

ব্যাংক একাউন্ট থেকে 436 টাকা কাটবে, ব্যালান্স না থাকলে টাকা জমা করুন, জরুরী নির্দেশ।

কারণ মিউচুয়াল ফান্ডে বিনিয়োগ বাজারগত ঝুঁকি সাপেক্ষ। এই ধরণের বিনিয়োগ এই ওয়েবপোর্টাল কখনোই সমর্থন করে না। ব্যক্তি যদি এই বিনিয়োগে ইচ্ছুক থাকেন, তাহলে সম্পূর্ণ নিজের দায়িত্বে করবেন।
Investment Plan সংক্রান্ত খবরের নতুন আপডেট সবার আগে পেতে হলে এই ওয়েবপোর্টালটি ফলো করতে ভুলবেন না।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

string(108) ""