চাকরি

Dearness Allowance – পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকারি কর্মীদের বকেয়া DA নিয়ে সুপ্রিমকোর্টে জোর ধাক্কা। কর্মীদের দাবি খারিজ।

Adv

পশ্চিমবঙ্গের সরকারি কর্মীদের Dearness Allowance বা বকেয়া মহার্ঘ ভাতা নিয়ে প্রায় কয়েক বছর ধরে টানাপড়েন চলছে। আর এই নিয়ে কলকাতা হাইকোর্ট (Calcutta High Court) সকল রাজ্য সরকারি কর্মীদের বকেয়া অবিলম্বে মিটিয়ে দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছিল। কিন্তু পশ্চিমবঙ্গ সরকার (West Bengal Government) এই মামলা নিয়ে সুপ্রিমকোর্টের (Supreme Court Of India) দারস্থ হয়।

West Bengal Dearness Allowance Case News In Supreme Court Of India.

বকেয়া Dearness Allowance নিয়ে রাজ্যে আন্দোলন চলছেই। সুপ্রিমকোর্টে এই মামলা দিন দিন পিছিয়েই যাচ্চে। এরফলে সরকারি কর্মীরা (WB Government Employees) আশাহত হচ্ছেন। তবে এবার আবার সুপ্রিমকোর্টে বড় ধাক্কা খেল সরকারি কর্মীরা। সরকারি কর্মীরা দ্রুত শুনানি করার জন্যে আদালতে আর্জি জানিয়েছিল। সেই আর্জি খরিজ করে দিল সুপ্রিমকোর্ট। বারবার মহার্ঘ ভাতার মামলা পিছিয়ে যাচ্ছে। ফলে সরকারি কর্মীদের বকেয়া পাওয়ার আশাও পিছিয়ে যাচ্ছে।

Ad

এই জন্য তারা দ্রুত শুনানির আর্জি জানায় সুপ্রিমকোর্টে। কিন্তু সুপ্রিমকোর্ট সেই আর্জি খারিজ করে দেয় শুক্রবার। পরের বছর 5ই ফেব্রুয়ারী তে এই মামলার শুনানি হবার কথা। কলকাতা হাইকোর্টে এই মামলার রায় দেয় এবং সেই রায় যায় সরকারি কর্মীদের পক্ষে। সেই রায়তে বলা হয়েছিল 31 শতাংশ হারে Dearness Allowance দিতে হবে সরকারি কর্মীদের। রাজ্য এই রায় কে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে সুপ্রিম কোর্টে দারস্থ হয়।

রাজ্যের যুক্তি ছিল, হাইকোর্টের সিদ্ধান্ত মেনে যদি 31% Dearness Allowance দিতে হয় তাহলে প্রায় 41 হাজার 770 কোটি টাকা ব্যায় হবে যা রাজ্যের পক্ষে বহন করা কঠিন। 2022 সালে এই মামলা দায়ের হয় 3 রা নভেম্বর। রাজ্যের পক্ষে সাওয়াল করেন মুকুল রোহতগি। এরপরে রাজ্যের আইনজীবি বদলে অভিষেক ভানু সিংভিকে দেওয়া হয়। এরপর একের পর এক তারিখ বদল করা হয়।

Govt Scheme (সরকারি প্রকল্প)

নানা করনে পিছিয়ে যায় মামলার শুনানি। গত 14ই জুলাই 9ম বার পিছিয়ে যায় মামলা। তারপড়ে তারিখ দেওয়া হয় 3রা নভেম্বর। সেই তারিখ ও বদল করা হয়। আশাহত হন কর্মীরা। এই মুহুর্তে রাজ্য সরকারি কর্মীরা 6 শতাংশ হারে DA পাচ্ছে আর কেন্দ্র সরকরি কর্মীরা 46 শতাংশ হারে। কিন্তু ধীরে ধীরে এই Dearness Allowance বা বকেয়া ডিএ মামলার পার্থক্য বৃদ্ধি পাচ্ছে।

কিন্তু এখনো পর্যন্ত এই বিষয় নিয়ে কোন ধরণের সদর্থক উত্তর পাওয়া যাচ্ছে না। এবারে আগামী বছরে সুপ্রিমকোর্ট এই বিষয়ে কি নির্দেশ দেয় সেই নিয়ে চিন্তায় সকলে। আর বছর পরলেই ২০২৪ সালের লোকসভা ভোটের দামামা বেজে যাবে। আর এই ভোটের প্রাক্কালে কি আদৌ এই নিয়ে কোন সদ্ধান্ত নেওয়া হবে কিনা সেই নিয়ে চিন্তায় রয়েছেন অনেকে। এবারে সময় বলবে Dearness Allowance মামলায় কি হতে চলেছে।
Written by Ananya Chakraborty.

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

string(100) ""