শিক্ষা

মাধ্যমিক-উচ্চমাধ্যমিকে ভালো নাম্বার পেতে এই পদ্ধতিতে সলভ করুন টেস্ট পেপার

Adv

এই পদ্ধতিতে টেস্ট পেপার সলভ করলেই কমপক্ষে ৯০-৯৫% নম্বর পাবেন ছাত্র-ছাত্রীরা।

সামনেই নতুন বছর আর নতুন বছর মানেই রাজ্যজুড়ে মাধ্যমিক এবং উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা শুরু হবে। আর মাধ্যমিক এবং উচ্চমাধ্যমিক মানেই শিক্ষার্থীরা এই ডিসেম্বর মাস থেকেই টেস্ট পেপার সলভ করা শুরু করবেন। তবে টেস্ট পেপার সলভ করতে গেলে তার সঠিক পদ্ধতি জানা প্রয়োজন, নতুবা শিক্ষার্থীদের নানাভাবে সমস্যার সম্মুখীন হতে হবে। অনেকক্ষেত্রেই সঠিকভাবে টেস্ট পেপার সলভ না করতে পারার জন্য সম্পূর্ণ টেস্ট পেপার সলভ করার পরেও শিক্ষার্থীরা ভালো নম্বর পান না। আর তাই আজ আমরা করার এক বিশেষ পদ্ধতি নিয়ে আলোচনা করতে চলেছি, যার মাধ্যমে টেস্ট পেপার সলভ করলেই আপনারা ৯০ থেকে ৯৫ শতাংশ নম্বর পেতে পারবেন।

Ad

টেস্ট পেপার সলভ করার ক্ষেত্রে শিক্ষার্থীদের প্রধান প্রশ্ন থাকে কোন টেস্ট পেপারটি কিনলে আশানুরূপ ফল পাওয়া যাবে। এক্ষেত্রে জেনে রাখা প্রয়োজন যে, সঠিক পদ্ধতি জানা থাকলে শিক্ষার্থীদের সিলেবাস অনুসারে বাজারচলতি যেকোনো টেস্ট পেপার সলভ করলেই সাফল্য পাওয়া যেতে পারে। অধিকাংশ ক্ষেত্রেই ছাত্র-ছাত্রীরা টেস্ট পেপার হাতে পাওয়া মাত্রই ছোট প্রশ্ন অথবা বড় প্রশ্ন সলভ করতে শুরু করেন, কিন্তু এভাবে টেস্ট পেপার সলভ করলে সমস্যা হতে পারে। এক্ষেত্রে টেস্ট পেপার সলভ করার সবচেয়ে ভালো উপায় হলো, চ্যাপ্টারভিত্তিক টেস্ট পেপার সলভ করা।

লক্ষ্মীর ভান্ডারের মতো মমতা চালু করলো উই কার্ড প্রকল্প। মহিলারা প্রত্যেক মাসে পাবে ১০০০ টাকা

এর জন্য প্রথমেই শিক্ষার্থীকে যেকোনো বিষয়ের একটি চ্যাপ্টার ভালো করে পড়ে নিতে হবে অথবা রিভিশন করে নিতে হবে তারপরে টেস্ট পেপারের বিভিন্ন প্রশ্নের সেটগুলি থেকে ওই চ্যাপ্টারের সমস্ত বড় প্রশ্নগুলি সলভ করতে হবে। একদিনে সমস্ত সেট সলভ করা সম্ভব নয়, তাই একদিনে ৫ টি বা তার কম সেট সলভ করে ওই চ্যাপ্টারটি শেষ করতে হবে এবং পরবর্তীতে একইভাবে অন্যান্য চ্যাপ্টারগুলি সলভ করতে হবে। আর এভাবে টেস্ট পেপার সলভ করলে অত্যন্ত সহজে টেস্ট পেপার সলভ করার পাশাপাশি বইয়ের রিভিশনও হয়ে যাবে। এরপর ওই চ্যাপ্টারের সমস্ত শর্ট প্রশ্ন সলভ করতে হবে।

আর এভাবে অন্ততপক্ষে ৫ টা বা তার বেশি সংখ্যক সেট সলভ করার পর শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন বিষয়গুলির ওপরে বারংবার পরীক্ষা দিতে হবে। পরীক্ষা দেওয়ার ক্ষেত্রে অবশ্যই সময়ের (৩ ঘণ্টা ১৫ মিনিট) দিকে খেয়াল রাখা প্রয়োজন। এভাবে সপ্তাহে অন্ততপক্ষে দুটি বিষয়ের পরীক্ষা দেওয়া গেলেই মাধ্যমিক হোক বা উচ্চমাধ্যমিক যেকোনো ক্ষেত্রেই শিক্ষার্থীরা ভালো ফল করতে পারবেন।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

string(110) ""