প্রকল্প

New Krishak Bandhu – পুজোর আগে মাথাপিছু 10 হাজার টাকা করে দেবে রাজ্য সরকার। কিভাবে পাবেন জেনে নিন।

Adv

মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি পশ্চিমবঙ্গের জনগনের সুবিধার্থে একাধিক প্রকল্প (New Krishak Bandhu) এনেছেন। ছাত্রছাত্রী পড়াশোনার অনুদান থেকে শুরু করে ব্যবসা জন্য ঋণ দেওয়া, চিকিৎসায় সুবিধা প্রদানের জন্য বেশ কিছু প্রকল্প তিনি এনেছেন। এগুলো ছাড়াও কন্যাশ্রী, রূপশ্রী, মহিলাদের জন্য লক্ষ্মীর ভাণ্ডার, অনগ্রসর শ্রেণীর পড়ুয়াদের জন্যে রয়েছে বেশ কিছু স্কলারশিপ এবং এই সকল প্রকল্প (Govt Scheme) ও স্কলারশিপের জন্য মুখ্যমন্ত্রীর জনপ্রিয়তা অনেক বৃদ্ধি পেয়েছে।

WB Government New Krishak Bandhu Scheme Update.

এবার পশ্চিমবঙ্গ সরকার (Government Of West Bengal) এই পেশায় নিযুক্ত নাগরিকদের ১০ হাজার টাকা করে দেবে, কোন পেশার নাগরিকরা এই টাকা পাবে? কিভাবে পাবে এই টাকা? চলুন জেনে নেই। রাজ্য সরকার কৃষকদের (New Krishak Bandhu) জন্য এক প্রকল্প এনেছে তা হলো ‘কৃষকবন্ধু প্রকল্প’। গরিব দুস্থ কৃষক দের জন্যে এই প্রকল্প এনেছে সরকার।

Ad

কিছুদিন পর পুজোর আর এই পুজোতে কৃষকদের মুখে হাসি ফোটানোর জন্য এনেছে সুখবর। এই ‘কৃষকবন্ধু প্রকল্পে’ (New Krishak Bandhu) 10 হাজার টাকা করে পাবে কৃষকরা। নির্দিষ্ট কিছু শর্ত সাপেক্ষে প্রকল্পের জন্য আবেদন জানাতে পারেন কৃষক জনগণ। কিভাবে আবেদন করতে হবে, আর কী কী Documents বা নথিপত্র লাগবে চলুন জেনে নেওয়া যাক।

আবেদন করার জন্যে কী কী শর্ত পুরণ করতে হবে? রাজ্য সরকারের কৃষক বন্ধু প্রকল্পের (New Krishak Bandhu) সুবিধা পাওয়ার জন্য একজন কৃষকের চাষযোগ্য জমি থাকতে হবে ও জমির পড়চা থাকতে হবে। এটি কৃষকের পাট্টা জমি, নিজের জমি অথবা বর্গাদার জমি হলেও চলবে। কৃষককে পশ্চিমবঙ্গের স্থায়ী বাসিন্দা হতে হবে। তাঁর বয়সসীমা 18 থেকে 60 বছরের মধ্যে হতে হবে। এছাড়াও সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হল, কৃষকের নিজস্ব সিঙ্গল ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থাকতে হবে।

Unique id Card (ইউনিক আইডি কার্ড)

আবেদন করতে কী কী নথি লাগবে? এই প্রকল্পে আবেদন করতে কৃষকদের লাগবে – আধার কার্ড, ভোটার কার্ড, জমির পর্চা, নিজস্ব ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট, ফটো। এছাড়া, কৃষক যদি অন্য কারোর থেকে জমিটি কিনে থাকেন তবে বা জমিটি যদি দানপত্রে লাভ হয়ে থাকে, তবে বিক্রেতা ব্যক্তির এপিক নম্বরটি লাগবে আবেদন করার সময়। আবেদন করবেন কী করে?

Electricity Bill Payment – পুজোর আগে কারেন্ট বিল কমিয়ে দিলেন মুখ্যমন্ত্রী। পশ্চিমবঙ্গবাসী দারুন খুশি।

সাধারণত বছরে দুবার রাজ্য সরকার পশ্চিমবঙ্গের দরিদ্র কৃষকদের (New Krishak Bandhu) অনুদান প্রদান করে থাকেন। প্রকল্পের আবেদন জানানোর জন্য দুয়ারে সরকার ক্যাম্প (Duare Sarkar Camp) অথবা বিডিও অফিস (BDO Office) থেকে ফর্ম সংগ্রহ করে প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস সহ সেটা ফিলাপ করে জমা দিতে হবে।

WBBPE Primary TET Exam – অপেক্ষার অবসান, অবশেষে টেট পরীক্ষার বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ। সমস্ত নিয়ম

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

string(99) ""