গুরুত্বপূর্ণ খবর

Ration Card – রেশন গ্রাহকদের সুবিধার জন্য নতুন ব্যবস্থা চালু করলো সরকার, ডিসেম্বর থেকেই কার্যকর।

Adv

পশ্চিমবঙ্গ সরকারের (Government Of West Bengal) উদ্যোগে রেশন কার্ড (Ration Card) গ্রাহকদের জন্য এক সুনিশ্চিত বন্দোবস্ত করার পথে অবশেষে হাঁটল সরকার। বর্তমানে রেশন দুর্নীতি (Ration Fraud) নিয়ে রাজ্য রাজনীতি সরগরম রয়েছে। কিন্তু এবারে এই দুর্নীতি রোধ করার জন্য গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ নিল খাদ্য দফতর (Food Department Of West Bengal) তথা সরকার। গরিব মানুষদের দুবেলা দুমুঠো ভাত জোগার করে দেয় রেশন কার্ড। তাই রেশন কার্ড শুধু গরিব বলে নয় অনেক মধ্যবিত্ত মানুষদের কাছেও অতি প্রয়োজনীয় নথি।

Big Update For West Bengal Ration Card Holders.

করোনার সময়কালের আগে সাধারন মানুষদের অল্প কিছু মূল্যে এসব জিনিস কিনতে হত। কিন্তু করোনা আসার পর অনেক মানুষ এক মুঠো চাল জোগান করার মত অবস্থায় ছিল না তাই তখন কেন্দ্র সরকার বিনামূল্যে রেশন চালু করেন। এতে অনেক গরিব মধ্যবিত্ত মানুষদের সুবিধা হয়। কিন্তু সম্প্রতি এই Ration Card নিয়ে অনেক দুর্নীতির খবর ও উঠে এসেছে।

Ad

এক এক করে অনেক ডিলার মন্ত্রীদের জেরা করছে ED. কেউ কেউ আবার গ্রেফতারও হয়েছে। অনেক রেশন ডিলার ও রাজ্যের মন্ত্রী জড়িত এই রেশন দুর্নীতিতে। রেশন ডিলারদের (Ration Dealer) বিরুদ্ধে সাধারন মানুষদের অভিযোগ যে রেশন ডিলাররা রেশন সামগ্রী (Ration Items List) ওজনে কমিয়ে দিচ্ছে। তাই এবার রাজ্য খাদ্য ও সরবরাহ বিভাগ কয়েক হাজার Ration Card ইলেকট্রিক ওজন স্কেল চালু করেছে। এটির আসল নাম হল ‘ওয়েয়িং স্কেল’। রেশন ডিলারদের কালোবাজারি রুখতে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার।

এক আধিকারিক জানিয়েছে রেশন ব্যবস্থায় স্চ্ছতা আনতে এবং খাদ্যশস্যের ক্ষেত্রে সুবিধাভোগীরা যাতে কোন ভাবেই প্রতারিত না হন তা নিশ্চত করাই আমাদের লক্ষ্য। এই রেশন দোকান গুলোতে এই বিশেষ মেশিনটি বসানোর লক্ষ্য মাত্রা নেওয়া হয়েছে। অনেক রেশন ডিলারদের বিরুদ্ধে আভিযোগ ওঠে রেশন সামগ্রী নিয়ে কারচুপির তাই এই কালোবাজারি রুখতে 18 হাজার রেশন দোকানে (Ration Card) ইলেকট্রিক ওজন স্কেল বসিয়ে দিয়েছে রাজ্য সরকার।

সরকারি কর্মী (Government Employees)

এবিষয়ে খাদ্য ও সরবরাহ দফতরের (Ration Card) এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন যে, “ইলেকট্রনিক ওজন স্কেল গুলি ই-পিওএস (E – POS) মেশিনের সাথে সংযুক্ত থাকবে এবং খাদ্যশস্য বিতরণের প্রতিটি লেনদেনের সময় জিনিস গুলির ওজন সঙ্গে সঙ্গে আমাদের বিভাগের কেন্দ্রীয় সার্ভারে উপলব্ধ হবে। সুতরাং প্রতিটি লেনদেন বিভাগের শীর্ষ কর্মকর্তারা পর্যবেক্ষণ করতে পারেন।

ইতিমধ্যেই রাজ্যজুড়ে খাদ্য সামগ্রী বণ্টনের জন্যে রেশন গ্রাহকদের (Ration Card Holders) রেটিনা স্ক্যানিংয়ের মাধ্যমে আধার প্রমানীকরনের প্রক্রিয়াটি শেষ করেছে সরকার। তাই বলা যায়, এবার থেকে রেশন নিয়ে দুর্নীতি কালোবাজারি এসব এখন অতিত। আর এই সামান্য পদ্ধতি অবলম্বন করার মাধ্যমে রাজ্যের কোটি কোটি রেশন গ্রাহকেরা উপকৃত হবেন বলে মনে করা হচ্ছে।
Written by Ananya Chakraborty.

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

string(109) ""