টেট

Primary TET – প্রাথমিক টেট মামলায় আরও 10000 শিক্ষকের চাকরি বাতিল। সব মিলিয়ে মোট 42000 শিক্ষক কাঠগড়ায়?

Adv

দীর্ঘদিন ধরে চলে আসছে শিক্ষক নিয়োগ দুর্নীতি (Primary TET Scam) মামলা। এই মামলাতে এসেছে নতুন একটি দিক। কলকাতা হাইকোর্টে (Calcutta High Court) জমা পড়েছে নতুন আর্জি। জানা যাচ্ছে, প্রাথমিক স্কুলের আরও ১০ হাজার জন শিক্ষকের চাকরি বাতিল হতে পারে। অভিযোগ এই শিক্ষকরা চাকরির শর্ত এখনও পর্যন্ত পূরণ করতে পারেননি,‌ তা সত্ত্বেও অস্থায়ী শিক্ষক পদে নিয়োগ আছেন। তবে সুপ্রিম কোর্টের রায় অনুযায়ী, এই শিক্ষকদের অস্থায়ী চাকরিও বাতিল হওয়ার কথা।

Primary TET Recruitment News From Calcutta High Court.

কিন্তু এখনও পর্যন্ত সেই নিয়ে কোন পদক্ষেপ নেওয়া হয়নি। এবার মঙ্গলবার কলকাতা হাইকোর্টে এই ১০ হাজার প্রাথমিক শিক্ষকদের চাকরি বাতিল করার আর্জি জমা পড়েছে। এই মামলার (Primary TET Case) শুনানি হবে বুধবার অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের (Justice Abhijit Ganguly) এজলাসে। সম্প্রতি বি এড বনাম ডি এল এড মামলার রায় বেরিয়েছে। সেই অনুযায়ী বি এড প্রার্থীরা প্রাথমিক স্কুলে চাকরি করতে পারবেন না আর প্রাথমিকস্তরের নিয়োগ প্রক্রিয়ায় অংশগ্রহণ করতে পারবেন না।

Ad

কিন্তু এই ১০ হাজার অস্থায়ী শিক্ষকরা বি এড প্রশিক্ষণ লাভ করেছেন। প্রাথমিক স্কুল গুলিতে ডি এল এড ডিগ্রি লাগে। ফলে তাঁরা এই নিয়োগ প্রক্রিয়ার অংশ হতে পারবেন না। তা সত্ত্বেও বহাল তবিয়তে তাঁরা চাকরি করছেন। বি এড প্রশিক্ষিত প্রার্থীরা উচ্চ প্রাথমিক (Primary TET) সহ উপরেরস্তরের স্কুল গুলিতে চাকরি করতে পারবেন। তবে ২০১৮ সালে জাতীয় শিক্ষণ পর্ষদ (NCTE) কর্তৃক একটি নিয়ম তৈরি করা হয়েছিল।

প্রশিক্ষিত প্রার্থীরা প্রাথমিক স্কুলে চাকরি করতে পারবেন এবং প্রাথমিকের নিয়োগ প্রক্রিয়ায় অংশ গ্রহণ করতে পারবেন। তবে এর জন্য চাকরি পাওয়ার ১ বছরের মধ্যে তাঁদের ৬ মাসের একটি ব্রিজ কোর্স কমপ্লিট করতে হবে। কিন্তু মামলাকারীরা জানিয়েছেন, এই ১০ হাজার প্রাথমিক শিক্ষকরা বি এড প্রশিক্ষিত হয়েও ব্রিজ কোর্স করেননি। তাই তাঁরা আর প্রাথমিক শিক্ষক (Primary TET Recruitment) হিসেবে নিয়োগ থাকতে পারবেন না।

Holiday (রাজ্যে নতুন ছুটি)

মঙ্গলবার ৩৩৪ জন প্রাথমিক চাকরিপ্রার্থী এই মর্মে কলকাতা হাইকোর্টে মামলা দায়ের করেছেন। তাঁরা জানিয়েছেন, এই ১০ হাজার প্রাথমিক শিক্ষকরা (Primary TET) ২০২০ সালের নিয়োগ প্রক্রিয়ার মাধ্যমে চাকরি পেয়েছিলেন। প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের (WBBPE) ডেপুটি সেক্রেটারি জানিয়েছেন এই ১০ হাজার প্রাথমিকস্তরের অস্থায়ী শিক্ষকরা ব্রিজ কোর্সটি করেননি।

Salary Hike – বদলে গেল সরকারি কর্মীদের বেতনের নিয়ম। সেপ্টেম্বর থেকেই সবার বেতন বাড়বে।

তবে সূত্র মারফত জানা যাচ্ছে, ২০১৫ সাল থেকে এখনও পর্যন্ত রাজ্যে শিক্ষকদের ব্রিজ কোর্স করানোই হয়নি। তাই এই শিক্ষকরা অস্থায়ী শিক্ষক হিসেবেই নিয়োগ আছেন। আর রাজ্য সরকারের ‘বি’ ক্যাটেগরিতে বেতন পাচ্ছেন। কিন্তু সুপ্রিম কোর্টের রায় অনুযায়ী এই ১০ হাজার অস্থায়ী শিক্ষকরা প্রাথমিক স্কুলে শিক্ষকতা করতে পারবেন না। আগামী বুধবার এই মামলার (Primary TET Recruitment Case) শুনানি হবে বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় এর সামনে।

Business Ideas – ঘরে বসে ব্যবসার সুযোগ। মাত্র 25 টাকায় কিনে 100 টাকায় বিক্রয় করুন। লসের

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

string(93) ""