প্রকল্প

লক্ষ্মীর ভান্ডারে আবেদনকারীরা কেন পাচ্ছেন না টাকা? না জানলে নাম বাতিল, পাবেন না অন্যান্য আরও সুবিধা।

Adv

সাধারণ মানুষকে আর্থিক দিক থেকে সাহায্য করতে পশ্চিমবঙ্গ সরকারের তরফে একাধিক জনমুখী প্রকল্প (লক্ষ্মীর ভান্ডার, কন্যাশ্রী, রূপশ্রী, সবুজ সাথী, যুবশ্রী ইত্যাদি) চালু করা হয়েছে। বর্তমানে এই প্রকল্পের সুবিধা নিয়ে থাকেন রাজ্যের লাখ লাখ মানুষ। যেগুলির মধ্যে অন্যতম হল লক্ষ্মীর ভান্ডার প্রকল্প। কেবলমাত্র মহিলারাই এই প্রকল্পের সুবিধা নিতে পারবেন। সামনেই পঞ্চায়েত ভোট। তার আগেই লক্ষ্মীর ভান্ডার প্রকল্প নিয়ে নয়া আপডেট পাওয়া গেলো।

লক্ষ্মীর ভান্ডার এ আর কি কি সুবিধা মিলবে দেখুন।

গত ১ এপ্রিল থেকে শুরু হয়েছে দুয়ারে সরকার শিবির। গত ২০ এপ্রিল ছিল এই শিবিরের শেষ দিন। রাজ্য জুড়ে বিভিন্ন জায়গায় এই ক্যাম্প বা শিবিরের আয়োজন করা হয়েছিল। রাজ্যের একাধিক প্রকল্পের সুবিধা পাওয়া নিয়ে কোনো সমস্যা হলে এই ক্যাম্পে গিয়ে আধিকারিকদের সঙ্গে যোগাযোগ করার ব্যবস্থা করা হয়েছিল। যার মধ্যে লক্ষ্মীর ভান্ডার প্রকল্পে সর্বোচ্চ আবেদন জমা পড়েছিল, এমনটাই সংবাদ মাধ্যম সূত্রে খবর। চলতি মাসে এখনও ব্যাংকে ঢোকেনি প্রকল্পের টাকা। কবে দেওয়া হবে?

Ad

নবান্ন সূত্রে খবর, চলতি মাসে দুয়ারে সরকার শিবিরে মোট ১১ লাখ ১৬ হাজার আবেদন জমা পড়েছে। যার মধ্যে ১১ লাখ আবেদনের মধ্যে প্রায় ১০ লাখ আবেদন মঞ্জুর করা হয়েছে। বাকি আবেদনগুলি বর্তমানে যাচাই করা হচ্ছে। সেই কাজও কিছুদিনের মধ্যে সম্পন্ন করা হবে। রাজ্য জুড়ে এই প্রকল্পে উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনা, মালদা, নদিয়া, হুগলির আবেদনকারীর সংখ্যা সবথেকে বেশি। বাকি জেলাগুলির আবেদনকারীর সংখ্যাও খুব কম নয়। যার ফলে রাজ্যের মোট ১ কোটি ৯৮ লাখ মহিলা এই প্রকল্পের সুবিধা পাবেন।

কবে পাবেন লক্ষ্মীর ভান্ডার প্রকল্পের টাকা? নতুন আবেদন ও আগের সকল গ্রাহকদের জন্য সুখবর।

লক্ষ্মীর ভান্ডার প্রকল্পের টাকা ব্যাংক একাউন্টে কবে ঢুকবে?
এপ্রিল মাসের লক্ষ্মীর ভাণ্ডারের আর্থিক লেনদেন এখনও সম্পন্ন হয়নি। সংবাদ মাধ্যম সূত্রে খবর, আগামী ২৬ এপ্রিল মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রশাসনিক পদে থাকা কর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করতে চলেছেন। রাজ্যের বিভিন্ন জেলায় সরকারি প্রকল্প নিয়ে এদিন আলোচনা করা হবে। ওইদিনই লক্ষ্মীর ভাণ্ডারের আবেদনকারীদের উদ্দেশ্যে টাকা পাঠানো হতে পারে। উল্লেখ্য, এখন আরো সুবিধা পাচ্ছেন এই প্রকল্পের আবেদনকারীরা, সরকারের তরফে জানানো হয়েছে আবেদনকারীরা বিধবা ভাতা পেলেও এই প্রকল্পের জন্য আবেদন জানাতে পারবেন। এছাড়া স্বাস্থ্যসাথী কার্ড না থাকলেও পাবেন প্রকল্পের টাকা।

তবে আবেদন জানালেও কারা পাবেন না লক্ষ্মীর ভাণ্ডারের টাকা?
গত মাসেই বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানানো হয়েছে, যে সকল আবেদনকারীদের ব্যাংক একাউন্টের সঙ্গে আধার কার্ড এখনও পর্যন্ত লিংক করানো হয়নি, তারা এই প্রকল্পের টাকা পাবেন না।

রেশন কার্ড গ্রাহকদের মে মাসের আগে সেরে ফেলতে হবে এই কাজ, নইলে চাল – গম তুলতে গিয়ে সমস্যায় পরবেন।

এই প্রকল্পে আবেদনে কত টাকা পাওয়া যাবে?
জেনারেল ক্যাটাগরিভুক্ত আবেদনকারী মহিলারা পাবেন মাসিক ৫০০ টাকা। তপশিলি জাতি বা তপশিলি উপজাতি ভুক্ত আবেদনকারী মহিলারা পাবেন মাসিক ১০০০ টাকা। তাহলে আর দেরি কিসের? আপনার ব্যাংক একাউন্টের সঙ্গে আধার কার্ড লিংক না করা থাকলে চটপট সেরে ফেলুন এই কাজ। আর প্রতি মাসে এই প্রকল্পের সুবিধা পান।
এই সংক্রান্ত খবরের নতুন আপডেট সবার আগে পেতে হলে এই ওয়েবপোর্টালটি ফলো করতে ভুলবেন না।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

string(95) ""