স্কলারশিপ

আবেদন করুন কোটাক কন্যা স্কলারশিপে এবং পেয়ে যান প্রতিবছরে ১,৫০,০০০ টাকা পর্যন্ত অনুদান

Adv

সমগ্র ভারতের মেয়েদের উন্নয়নের খাতিরে এবং মেয়েরা যাতে পড়াশোনা সহ অন্যান্য ক্ষেত্রে এগিয়ে যেতে পারে তার জন্য কেন্দ্রীয় সরকার সহ বিভিন্ন রাজ্যের রাজ্য সরকার এবং বিভিন্ন ধরনের বেসরকারি সংগঠনের তরফে নানা প্রকার স্কলারশিপ প্রদান করা হয়ে থাকে। মেয়েরা যাতে স্বাবলম্বী হতে পারে এবং নিজের ভবিষ্যৎ গঠন করতে পারে তা নিশ্চিত করার পাশাপাশি মেয়েদের বাল্যবিবাহ রোধ করাও স্কলারশিপগুলি কার্যকরী করার ক্ষেত্রে মূল উদ্দেশ্য। আর আজ আমরা সমগ্র ভারতের বিভিন্ন ক্ষেত্রের সমস্ত ছাত্রীদের জন্য এমন একটি স্কলারশিপের খবর নিয়ে হাজির হয়েছি যার মাধ্যমে তারা সর্বোচ্চ ১ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা পর্যন্ত পেয়ে যেতে পারেন।

আজ আমরা এই পোস্টে কোটাক মহিন্দ্রা গ্রুপ অফ কোম্পানির পক্ষ থেকে শুধুমাত্র মেয়েদের জন্য কার্যকরী কোটাক কন্যা স্কলারশিপ নিয়ে আলোচনা করতে চলেছি। ভারতের বিভিন্ন প্রত্যন্ত অঞ্চলের মেয়েরা যাতে শিক্ষাক্ষেত্রে এগিয়ে যেতে পারে এবং ভবিষ্যতে নিজেরা স্বাবলম্বী হতে পারে তার জন্যই কোটাক মাহিন্দ্রা গ্রুপ অফ কোম্পানির পক্ষ থেকে এই স্কলারশিপটি কার্যকরী করা হয়েছে। আর তাই আজ আমরাএই পোস্টে সমস্ত ছাত্রীদের সুবিধার্থে কিভাবে তারা এই স্কলারশিপের জন্য আবেদন জানাবেন, স্কলারশিপে আবেদনের ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় যোগ্যতা কি কি, আবেদনের ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় নথি কি কি তা সম্পর্কে আলোচনা করতে চলেছি।

Ad

চলুন তবে প্রথমেই জেনে নেওয়া যাক কোটাক কন্যা স্কলারশিপে আবেদনের ক্ষেত্রে আবশ্যিক যোগ্যতা কি কি:-
১. শুধুমাত্র মেয়েরাই এই স্কলারশিপে আবেদনের যোগ্য।
২. আবেদনকারী ছাত্রীকে অবশ্যই উচ্চমাধ্যমিকে বা সমতুল্য যেকোনো পরীক্ষায় ৮৫ শতাংশ নম্বর নিয়ে উত্তীর্ণ হতে হবে।
৩. যে সমস্ত ছাত্র-ছাত্রীরা উচ্চ মাধ্যমিকের পর MBBS, Design, ইঞ্জিনিয়ারিং (Engineering) আর্কিটেকচার (Architecture), আইন (LLB) এর মত প্রফেশনাল কোর্সগুলিতে প্রথম বর্ষে ভর্তি হয়েছেন, তারাই এই স্কলারশিপে আবেদনের যোগ্য।
৪. যে সমস্ত ছাত্রীদের পরিবারের বার্ষিক আয় ৩ লক্ষ ২০ হাজার টাকার নিচে তারাই একমাত্র এই স্কলারশিপে আবেদনের যোগ্য।
৫. কোটাক মহিন্দ্রা গ্রুপ, কোটাক এডুকেশন ফাউন্ডেশন এবং Buddy4Study এর কর্মীদের সন্তানেরা এই স্কলারশিপের অধীনে অনুদানের জন্য আবেদনে করতে পারবেন না।

কেন্দ্রীয় সরকারের তরফে বাতিল করা হলো ১০ লক্ষ রেশন কার্ড, এর মধ্যে আপনার নাম নেই তো, জেনে নিন এখনই

স্কলারশিপের অধীনে ছাত্রীরা কত টাকা করে অনুদান পাবেন?
কোটাক কন্যা স্কলারশিপের অধীনে নির্বাচিত ছাত্রীরা প্রতিবছর ১,৫০,০০০ টাকা করে অনুদান পাবেন। যতদিন পর্যন্ত তাদের কোর্স চলবে ততদিন পর্যন্ত তাদের এই অনুদান দেওয়া হবে।

কিভাবে এই স্কলারশিপের অনুদানের জন্য আবেদন করবেন?
কোটাক কন্যা স্কলারশিপের জন্য আবেদনের প্রক্রিয়া অনলাইনের মাধ্যমে সম্পন্ন করা যাবে।
১. এক্ষেত্রে আপনাকে প্রথমেই Buddy4Study এর অফিসিয়াল ওয়েবসাইট https://www.buddy4study.com/page/kotak-kanya-scholarship এ যেতে হবে।
২. এরপর আপনার সামনে যে পেজটি আসবে তাতে আপনি কোটাক কন্যা স্কলারশিপের সমস্ত তথ্য দেখতে পারবেন। ওই পেজটির একেবারে শেষের দিকে থাকা Apply Now বাটনে ক্লিক করতে হবে।
৩. তারপর আপনাকে আপনার ইমেইল অ্যাড্রেস, গুগল অ্যাকাউন্ট কিংবা ফোন নাম্বারের মাধ্যমে রেজিস্ট্রেশনের প্রক্রিয়াটি সম্পন্ন করতে হবে।

৪. রেজিস্ট্রেশনের প্রক্রিয়াটি সম্পন্ন হলেই আপনার সামনে একটি পেজ আসবে, ওই পেজটিতে থাকা Start Application নামক অপশনটিতে আপনাকে ক্লিক করতে হবে।
৫. উপরোক্ত অপশনে ক্লিক করলে আপনার সামনে কোটাক কন্যা স্কলেরশিপে আবেদনের ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় ফর্মটি চলে আসবে। এরপর সমস্ত প্রয়োজনীয় তথ্য সঠিকভাবে ফর্মটিতে উল্লেখ করতে হবে।
৬. সবশেষে প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস গুলি সঠিকভাবে আপলোড করে ‘Terms and Conditions’ গুলি অ্যাকসেপ্ট করলেই আপনি ফর্মটির একটি প্রিভিউ দেখতে পারবেন। সমস্ত তথ্য সঠিক থাকলে submit অপশনে ক্লিক করলেই আবেদনের প্রক্রিয়াটি সম্পন্ন হয়ে যাবে।

আবেদনের ক্ষেত্রে প্রয়োজনে নথিপত্র সমূহ:-
১. উচ্চ মাধ্যমিক কিংবা সমতুল্য যেকোন পরীক্ষার মার্কশীট।
২. বর্তমানে যে কোর্সে পাঠরত তাতে ভর্তির রশিদ।
৩. Bonafide student certificate অথবা কলেজের তরফে ছাত্রীকে যে চিঠি দেওয়া হয়েছে সেটি (certificate/letter from college)।
৪. ছাত্রী বর্তমানে যে কোর্সে পাঠরত তার ফি স্ট্রাকচার।
৫. পরিবারের বাৎসরিক আয়ের সার্টিফিকেট।
৬. বাবা কিংবা মা অথবা উভয়েই যদি মৃত হয়ে থাকেন তবে মৃত ব্যক্তির ডেথ সার্টিফিকেট।
৭. আধার কার্ড।
৮. ব্যাংকের পাশবই।
৯. প্রতিবন্ধী সার্টিফিকেট।
১০. পাসপোর্ট সাইজের ফটো।

নির্বাচনের প্রক্রিয়া:-
এই স্কলারশিপে যে সমস্ত ছাত্রীরা আবেদন করবেন তাদের শিক্ষাগত যোগ্যতা এবং পরিবারের বার্ষিক আয়ের পরিপ্রেক্ষিতে নির্বাচন করা হবে। এরপর নির্বাচিত ছাত্রীদের দু’বার ইন্টারভিউ নেওয়া হবে। যে সমস্ত ছাত্ররা ইন্টারভিউ উত্তীর্ণ হতে পারবেন তারাই কেবলমাত্র এই স্কলারশিপের অনুদান পাবেন। নির্বাচিত ছাত্রীদের লিস্ট আপনারা Buddy4study এর অফিসের ওয়েবসাইটে দেখতে পাবেন।

আবেদনের সময়সীমা:-
বর্তমানে এই স্কলারশিপের আবেদন চলছে। আগামী ৩০ শে নভেম্বর ২০২২ তারিখ পর্যন্ত এই স্কলারশিপের অধীনে অনুদানের জন্য আবেদন করা যাবে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

string(109) ""