ট্রেন্ডিং

এবার সত্যি সত্যি কমছে রান্নার গ্যাসের দাম, সাধারনের হেঁসেলে ফিরলো স্বস্তি।

Adv

নতুন বছরের শুরুতেই দেশবাসীর জন্য সুখবর আনতে চলেছে কেন্দ্রের সরকার। এই মূল্যবৃদ্ধির সময়েও আপনার বাড়ির রান্নার গ্যাসের দাম যদি কমে তা সর্বস্তরে খুশির খবর বয়ে আনবে আশা করাই যায়। কেন্দ্র সরকার বিগত বছরেও মধ্যবিত্তের ঘরে খুশির হাওয়া এনেছিল উজ্জ্বলা প্রকল্পের মধ্য দিয়ে। ২০০ টাকা ভর্তুকি দেওয়ার কথা ছিল বিগত বছরের বাজেটে। যদিও সরকারের সেই নীতিকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে দিল্লী হাইকোর্টে মামলা রুজু করা হয়েছে।

আপনার শহরে রান্নার গ্যাসের দাম ঠিক কতটা কমলো, জানতে হলে পড়ুন বিস্তারিত।

দারিদ্রসীমার নীচে থাকা বাড়ির মহিলারা এই প্রকল্পের অধীনে আসে। যেখানে বছরে সর্বোচ্চ ১২ টি সিলিন্ডারে ২০০ টাকা করে ভর্তুকি দেওয়া হয়ে থাকে। বর্তমানে কলকাতায় রান্নার গ্যাসের দাম পড়ে ১৪.২ কেজিতে ১০৭৯ টাকা। দেখে নেওয়া যাক জেলাভিত্তিক দামের হেরফের।

Ad

বিদ্যুৎ বিলের খরচ অর্ধেক কমে গেল, শুধু করতে হবে এই সহজ কাজ।

বর্তমানে হাওড়ায় ১৪.২ কেজি সিলিন্ডারের দাম পড়ে ১০৮০ টাকা। সেই দাম জলপাইগুড়ি, মালদায় গিয়ে দাঁড়ায় ১১০৬.৫ টাকা এবং ১১৫০ টাকা। পূর্ব মেদিনীপুরের লোক সেই LPG কিনছে ১০৫৫ টাকায়। মূর্শিদাবাদ, নদীয়ার লোক ১৪.২ কেজি রান্নার গ্যাসের জন্য দিচ্ছে ১০৭৯ টাকা, ১০৭৯.৫ টাকা।

এক সংবাদ সংস্থার দাবি অনুসারে এই বছর আর্থিক বাজেটে এই প্রকল্পের মেয়াদ আরও একবছরের জন্য বাড়ানো হতে পারে। যার ফলে সরকারের খরচ হবে প্রায় ৬১০০ কোটি টাকা। সাধারণ মানুষের কষ্ট লাঘব হলেও রাজনৈতিক মহলে এর সাংবিধানিক দায় নিয়ে প্রশ্ন উঠছে।

পশ্চিমবঙ্গের আরও কিছু জেলার দামের তালিকা দেখে নেওয়া যাক। বাঁকুড়া, বীরভূমবাসী ১৪.২ কেজি গ্যাসের জন্য দিচ্ছে ১০৯১.৫ টাকা ও ১১১০.৫ টাকা। কোচবিহার, হুগলিতে সেই দাম পড়ে আবার ১১০৬.৫ টাকা এবং ১০৮২ টাকা। এই প্রকল্পের আওতায় আসে প্রায় ৯ কোটি দারিদ্রসীমায় থাকা পরিবার।

নতুন ব্যবসা, বিরাট লাভ। ছোট্ট মেশিন কিনে এই ব্যাবসা শুরু করলে কাস্টোমার হামলে পড়বে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

string(103) ""