পশ্চিমবঙ্গের খবর

Marriage Registration – পশ্চিমবঙ্গের বিবাহ আইনে বড় পরিবর্তন। বিয়ে করার আগে জানা বাধ্যতামূলক।

Adv

রেজিস্ট্রি বিয়ে (Marriage Registration) নিয়ে আবার নতুন তথ্য সামনে এলো। এর আগে রেজিস্ট্রি বিয়ে নিয়ে বলা হয়েছিল পাত্র পাত্রী থেকে শুরু করে সাক্ষী সবারই আধার কার্ড (Aadhaar Card) থাকা বাধ্যতামূলক। যারা বিয়ের জন্যে সাক্ষী দেবেন তাদের প্রমান হিসেবে আধার কার্ড ও বায়োমেট্রিক (Aadhaar Card Biometric) পদ্ধতিতে আঙ্গুলের ছাপ দিতে হবে। আর এবার আবার এই রেজিস্ট্রি বিয়ে নিয়ে নতুন তথ্য সামনে এলো।

Marriage Registration New Law In West Bengal.

এবার থেকে রেজিস্ট্রি বিয়ের যাবতীয় তথ্য আর পোর্টালে নয়। জালিয়াতি বন্ধ করতেই এই কাজ। 2019 সাল থেকে পশ্চিমবঙ্গে রেজিস্ট্রি বিয়ের (West Bengal Marriage Registration) জন্য যাবতীয় তথ্য ডিজিটাল পদ্ধতিতে সংরক্ষণ করা হয়। তার জন্য একটি পোর্টাল চালু করা হয়। সেই পোর্টালে অনলাইনে আবেদন করতে পারতেন পাত্র পাত্রীরা।

Ad

কিন্তু দিন দিন যে পরিমানে সাইবার অপরাধির সংখ্যা বেড়ে যাচ্ছে তাতে ডিজিটাল পদ্ধতিতে এসব গুরুত্বপূর্ণ নথি রাখা বিপদ জনক। তাই এবার Marriage Registration জন্যে দেওয়া নাগরিকদের আধার কার্ডের নম্বর (Aadhaar Card Number) এবং বায়োমেট্রিক তথ্য ওয়েবসাইট থেকে সরিয়ে ফেলার সিদ্ধান্ত নিল আইন দফতর। সরকারি ওয়েবসাইট থেকে নাগরিকদের যাবতীয় নথি হাতিয়ে নিয়ে নানা রকম খারাপ কাজ করছে সাইবার অপরাধীরা (Marriage Registration).

এর ফলে ব্যক্তিগত জীবনে যেমন প্রভাব পড়ছে তেমন ব্যাংকে রাখা গচ্ছিত টাকা উধাও হয়ে যাচ্ছে। এমন বহু আভিযোগ গত কয়েক বছর ধরে জমা পড়ছে আইন দফতরে। তারপরই এই বিষয়ে কড়া পদক্ষেপ হিসেবে বিয়ের জন্য দেওয়া যাবতীয় নথি পোর্টাল থেকে সরানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে আইন দফতর। উল্লেখ্য, 2019 সাল থেকে পশ্চিমবঙ্গে রেজিস্ট্রি (WB Marriage Registration) বিয়ের জন্য যাবতীয় তথ্য ডিজিটাল পদ্ধতিতে সংরক্ষণ করার কাজ শুরু হয়।

নাগরিকদের সুবিধার কথা মাথায় রেখেই শুরু করা হয় এই পোর্টাল। এই পোর্টালে গিয়ে পাত্রপাত্রীরা অনলাইনে আবেদন করতে পারবেন। পরে বিয়ের সময় পাত্রপাত্রীদের সাথে সাক্ষীদের আধার কার্ডএর নম্বর সহ আঙ্গুলের ছাপ বায়োমেট্রিক প্রমান হিসেবে ওয়েবসাইটে রাখা হত। বিয়ের রেজিস্ট্রির (Marriage Registration) ক্ষেত্রে আধার সংক্রান্ত নথি জমা করা বাধ্যতামূলক এবং বায়োমেট্রিক যাচাই করনের জন্যে পাত্র পাত্রী সহ সাক্ষীদের আঙ্গুলের ছাপ দেওয়া বাধ্যতামূলক।

তবে এর জন্যে বড় বিপত্তির ঘটনা ঘটছে প্রায় দেশের বিভিন্ন জায়গায়। সাইবার বিভাগের কাছে এধরনের প্রচুর অভিযোগ জমা পরে। তথ্য বেহাত হলেই আপনার অজন্তেই আপনি জালিয়াতি চক্রের ফাঁদে পড়তে পারেন। রাজ্যের সাধারন নাগরিকদের এধরনের জালিয়াতির হাত থেকে বাঁচানোর জন্য নতুন উদ্যোগ নিয়েছে আইন দফতর (Marriage Registration).

এই ধরনের অপরাধ রুখতে বিবাহ সংক্রান্ত পোর্টাল থেকে আধার ও বায়োমেট্রিক সংক্রান্ত সব তথ্য সরিয়ে নেওয়ার সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত হয়ে গিয়েছে। ফলে পোর্টালে ঢুকলে যে কেউ আর বিয়ের রেজিষ্ট্রেশন সার্টিফিকেট বা আধার কার্ডের নম্বর ও বায়োমেট্রিক তথ্য পাবেন না। আইন দফতর সুত্রে খবর, সাবধানতা অবলম্বন করতে এবার থেকে বিয়ের সার্টিফিকেটের (Marriage Registration) উপরে আঙ্গুলের চপের ছবি রাখা যাবে না।

Gold Price Today (আজকের সোনার দাম)

সেই জায়গায় আঙ্গুলের চাপ নেওযার কথা উল্লেখ করা হবে। আইন দফতরের এক আধিকারিক জানিয়েছেন, এখন থেকে আর বিয়ের রেজিস্ট্রি (Marriage Registration) সংক্রান্ত তথ্য অসংরক্ষিত ভাবে রাখা হবে না। আধার ও বায়োমেট্রিক সংক্রান্ত যে সব তথ্য বিয়ের প্রমাণ হিসাবে নেওয়া হবে, তা আইন দফতরের নিরাপদ জিম্মায় থাকবে। তাই তথ্য চুরি করা বা নকল করার কোনো সুযোগ থাকবে না।

পশ্চিমবঙ্গে খেলতে পারলেই সরকারি চাকরি। মুখ্যমন্ত্রীর বড় ঘোষণা। কিভাবে আবেদন করবেন?

এমনকি কখনও যদি পোর্টাল হ্যাক হয়ে যায় তাহলেই নথি তাদের হতে আসবে না। Marriage Registration নিয়ে এই নিয়ম বিয়ের আগে সকল পাত্রপাত্রীদের জেনে নেওয়া উচিত। আর এছাড়াও বর্তমানে আমাদের রাজ্যে চুটিয়ে বিয়ে হচ্ছে। আর এই জন্য এই নতুন নিয়ম সম্পর্কে সকলের জেনে নেওয়া উচিত কারণ এই ধরণের জালিয়াতি হলে সকলের ভবিষ্যতে সমস্যা হতে পারে।
Written by Ananya Chakraborty.

আগামীকাল পশ্চিমবঙ্গের সরকারী সাহায্য পোষিত ও নিম্ন বুনিয়াদি স্কুলে ছুটি ঘোষণা।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

string(91) ""